কোস্ট ট্রাস্ট দল নিরপেক্ষ: সরকারের সাথে ইতিবাচক সম্পর্কে বিশ্বাসী

জাহিদুল ইসলাম দুলাল, লালমোহন প্রতিনিধি: সম্প্রতি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সম্মানিত রাজনৈতিক উপদেষ্টা জনাব এইচ টি ইমাম মহোদয়ের একটি সংবাদ সম্মেলন আমাদের নজরে এসেছে। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে তিনি নির্বাচনপর্যবেক্ষণে জড়িত ৯টি বেসরকারী সংগঠন বিষয়ে তাঁর মতপ্রকাশ করেছেন, যেখানেকোস্ট ট্রাস্টের নামটিও আছে।

কোস্ট ট্রাস্ট বিশ্বাস করে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সম্মানিত রাজনৈতিক উপদেষ্টা জনাব এইচ টি ইমাম একজন সম্মানিত ও বিচক্ষণ ব্যক্তি। কোথাও কোনো তথ্যের উৎসের বিভ্রাটের কারণে তিনি কোস্ট ট্রাস্টের নাম বলে থাকতে পারেন। একটি অলাভজনক, মানবিক ও উন্নয়ন সংগঠন হিসেবে কোস্ট ট্রাস্ট সর্বদা মহানমুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী, যার মূল ভিত্তি হচ্ছে গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও জাতীয়তাবাদ। দেশের স্বার্থে সরকারের সাথে সকল সময় ইতিবাচকসম্পর্কের মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এই সংস্থা কাজ করে থাকে।

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দেনদরবারে সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য কোস্ট ট্রাস্ট কাজকরেছে এমন বহু নজির রয়েছে। বিশেষ করে জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলনের জাতিসংঘফ্রেমওয়ার্ক (ইউএনএফসিসিসি), বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সম্মেলন এবং উদ্বাস্তু ওঅভিবাসন বিষয়ে জাতিসংঘের গ্লোবাল কমপ্যাক্ট নিয়ে কোস্ট ট্রাস্ট সব সময় বাংলাদেশের সরকার তথা জনগণের স্বার্থে কাজ করেছে, সরকারকে তথ্য দিয়ে অথবা ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে সহযোগিতা করেছে। যার দ্বারা দেশ উপকৃত হয়েছে ও দেশেরসুনাম বৃদ্ধি পেয়েছে। সরকারের উর্ধতন নীতি নির্ধারকদের পক্ষ থেকে বহুবার আমরাএজন্য সাধুবাদও পেয়েছি।

বিগত ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় নির্বাচন পর্যবেক্ষকহিসেবে মনোনীত হবার পর আমাদের ব্যাপারে বিএনপি-জামাত আপত্তি তুলেছিল এইবলে, যে আমরা আওয়ামী লীগকে সমর্থন করি। এটি তখনকার সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়েছে।

উল্লেখ্য, সেসময় আওয়ামী লীগও কোস্ট ট্রাস্টের নির্বাচন পর্যবেক্ষণবিষয়ে আপত্তি তুলেছিল। তাৎক্ষণিকভাবে আমরা জনাব এইচ টি ইমাম মহোদয়ের সাক্ষাৎ-প্রার্থনা করলে তিনি অনুগ্রহ করে সময়দেন এবং আমাদের কথা শোনেন। পরবর্তীতেতিনি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বিষয়টি অনুধাবন করেন এবং কোস্ট ট্রাস্টের ব্যাপারেতাদের আপত্তি প্রত্যাহার করেন। আমরা সেজন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করি এবং সফলভাবে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পর্যবেক্ষকের ভূমিকা পালন করি।

আমরা এই সূত্রে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি, নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা হিসেবে কোস্ট ট্রাস্টের উপর দীর্ঘদিন যাবৎ আস্থারাখা ও বৃহত্তর সুযোগ প্রদানের জন্য। ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রতিও কোস্ট ট্রাস্টকৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আর্থিক ও কারিগরী সহায়তা প্রদানেরজন্য। তবে, আমরা এই মর্মে প্রকাশ করতে চাই যে, বিতর্কিত বিষয় এড়ানো এবং ভুলবুঝাবুঝির অবসান ঘটানোর জন্য আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে কোস্ট ট্রাস্টনির্বাচন পর্যবেক্ষণের সকল কার্যক্রম থেকে নিজেকে প্রত্যাহারের বিষয়টি বিবেচনা করছে।

উল্লেখ্য, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে এবং এনজিও ব্যুরোর তত্ত্বাবধানেকোস্ট ট্রাস্ট একটি বেসরকারী সংস্থা হিসেবে ১৯৯৮ সাল থেকে বাংলাদেশের উপকূলীয় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর দারিদ্র বিমোচন ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করে আসছে।