শেখ হাসিনার পক্ষে শেখ আব্দুল্লাহর গনসংযোগ

হেমন্ত বিশ্বাস, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মীর আ’লীগে যোগদান প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সোনার নৌকা পেতে মরিয়া টুঙ্গিপাড়া-কোটালীপাড়ার ভোটাররা।

গোপালগঞ্জে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ প্রধান শেখ হাসিনার নিজ নির্বাচনী এলাকা টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়ায় কোন ইউনিয়নের ভোটাররা সোনার নৌকা উপহার পাবেন সে লক্ষ্য নিয়ে নিরলস ভাবে মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রাণ প্রিয় নেত্রীকে তারা সর্বাচ্চ সংখ্যক ভোট দিয়ে বিজয়ী করে তাঁর হাত থেকে সোনার নৌকা পাওয়ার প্রত্যাশায় তাদের এই রাত-দিন পরিশ্রম।

শনিবার বিকেলে উপজেলার ডগলাস উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে নির্বাচনী জনসভায় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ ও তার স্ত্রী এ্যাড. রাশিদা আব্দুল্লাহর হাতে ফুল দিয়ে রাধাগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি বেলায়েত হোসেন হাওলাদারসহ শতাধিক নেতা-কর্মী নিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন। রাধাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সর্বানন্দ বৈদ্যের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী এলাকার প্রতিনিধি ও আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সুভাষ জয়ধর, উপজেলা চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান হাওলাদার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস, পৌর মেয়র মোঃ কামাল হোসেন শেখ, ভাইস চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান হাজরা, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুজ্জামান খান মিলন, আওয়ামী লীগ নেতা কমল সেন, নারায়ন চন্দ্র দাম, বেলায়েত হোসেন হাওলাদার বক্তব্য রাখেন।

বেলায়েত হোসেন হাওলাদার বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে আয়োজিত নির্বাচনী জনসভায় যোগ দিয়ে আমি শতাধিক নেতা-কর্মী নিয়ে আজ থেকে আওয়ামীলীগে যোগ দিলাম। আমি এতদিন ভুল করেছি। এখন থেকে জাতির জনকের আদর্শ বাস্তবায়ন ও শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলা গড়তে কাজ করে যাবো। ওই নির্বাচনী সমাবেশে শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ ঘোষনা করেন, যারা যে ইউনিয়ন থেকে সর্বোচ্চ ভোটে নৌকা প্রতীককে নির্বাচিত করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই ইউনিয়নের নেতা-কর্মীদের সোনার নৌকা উপহার দিবেন।

তিনি বলেন কোটালীপাড়ার মানুষ ৬ বার প্রধানমন্ত্রী এ আসন থেকে নির্বাচিত করেছেন। এবারও এলাকার মানুষ সর্বোচ্চ ভোটে শেখ হাসিনাকে নির্বাচিত করে আবারও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বানাবেন বলে তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। সেই সাথে আগামী ৩০ ডিসেম্বর সকল ভোটারকে সকাল থেকে ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করা আহবান জানান তিনি।

শনিবার সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত কোটালীপাড়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী এলাকার প্রতিনিধি ও আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ-র নেতৃত্বে এসব কর্মকান্ড পরিচালনা করেন। রাতে গোপালগঞ্জ ফেরার পথে তিনি কোটালীপাড়ার জটিয়ার বাড়ি, বুজুর্গো কোনা বাজার, সিকিরহাট ও কোটালীপাড়া পশ্চিম পাড়ের কয়েকটি নির্বাচনী অফিস উদ্ভোধন করেন।

উল্লেখ্য, এ আসনে ঐক্যফ্যন্টসহ অন্যান্য কোন দলের প্রচার প্রচারনা লক্ষ্য করা যায়নি। উল্লেখযোগ্য কোন প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীও নেই। তারপরও আওয়ামীলীগ সভাপতির প্রচার প্রচারনার কোন কমতি নেই। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে চলছে নৌকার প্রচার কার্যক্রম।