আমি আমার জমি ফেরত চাই সংবাদ সম্মেলনে বৃদ্ধা মহিলা রোয়াজান বেওয়া

নাজমুল হাসান নাহিদ, গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধিঃ নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের নাজিরপুরবাজার সংলগ্ন মোল্লাপাড়া গ্রামের মোছাঃ রোয়াজান বেওয়া(৭৫) নামে এক বৃদ্ধা মহিলা তার নিজ জমি ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছে।

বৃদ্ধা মহিলা রোয়াজান বেওয়া নাজিরপুর মোল্লাপাড়া এলকার মৃত রসবুল্লার স্ত্রী। তার ৬ ছেলে ও ২ মেয়ে।

Advertisement

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় তার নিজ বাসভবনে ওই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে বৃদ্ধা মহিলা রোয়াজান বেওয়া অভিযোগ করে বলেন, আমি অসুস্থ বৃদ্ধা মহিলা চোখে ভাল দেখতে পারিনা। কানেও ঠিকমত শুনিনা। অন্যের সহযোগিতা নিয়ে চলাফেরা ও খাওয়া-দাওয়া করি। এখন বর্তমানে আমি আমার দ্বিতীয় ছেলে মতিউর রহমানের বাড়িতে থাকি।

হঠাৎ করেই ০৬/০৬/২০১৮ ইং তারিখে আমি অসুস্থ বোধ করলে সকাল ১০টার দিকে আমার ৫ নাম্বার ছেলে মো. নজরুল ইসলাম ও মোছা. সায়রা বেগম আমাকে ডাক্তার দেখানোর নাম করে গুরুদাসপুর হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং আমাকে ভুল বুঝাইয়া ডাক্তারের কথা বলে অনেক গুলো কাগজে বেশ কয়েকটি টিপ সই নেয়। এবং পরে আমাকে কিছু ঔষধ কিনে দিয়ে বাড়িতে নিয়ে যায়।

পরে জানতে পারি আমার কাছ থেকে সুকৌশলে নজরুল ও সায়রা গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুরের মধ্যে মৌজা-৪৮নং, যার আর.এস.খতিয়ান নং(১২৯) ও আর.এস.দাগনং (২৭৪-ধানী, ৩২৬-ধানী) মোট ৪৪, ১/২ শতাংশ জমি লিখে নেয়।

এখন আমার দাবি আমার স্থাবর-অস্থাবর সকল সম্পত্তি ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক আমার সকল ওয়ারিশরা পাইবে। আমি সুস্থসজ্ঞানে আমার সম্পত্তি কোন ওয়ারিশকে দলিল করিয়া দেই নাই। আমার সাথে তারা প্রতারণা করে তপশিল ভুমি রেজিষ্ট্রি করিয়া নিয়াছে। তাই আমি আমার জমি ফেরত চাই এবং তাদের বিরুদ্ধে আইন-আনুগ ব্যবস্থা চাই।

১নং নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শওকত রানা লাবুমুঠোফোনে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। আগামী বুধবার ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে শুনানী হবে।