ট্রাফিক পুলিশকে পেটানো সেই সরকারি কর্মকর্তা এখন কারাগারে

সিলেট নগরের চৌহাট্টা পয়েন্টে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশকে মারধরের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সেই সরকারি কর্মকর্তা তানজিল আহমদকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। আজ রবিবার ২৭ জানুয়ারি দুপুরে ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল মো. আলীর দায়ের করা মামলায় তানজিল আহমদকে আটক করা হয়। তানজিল সুনামগঞ্জ জেলা পল্লি সঞ্চয় ব্যাংকের ব্যবস্থাপক ও সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার উত্তর দুবাগ গ্রামের ফরিদ উদ্দিনের ছেলে।

এদিকে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার জেদান আল মুসা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ট্রাফিক পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে আহতের ঘটনায় বিএম তানজিল আহমদকে আসামি করে শনিবার কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে আদালতের মাধ্যমে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

এর আগে গতকাল শনিবার বিকেলে তানজিল আহমদ মোটরসাইকেল নিয়ে চৌহাট্টা থেকে জিন্দাবাজার অভিমুখে ওয়ানওয়ের উল্টো পথ দিয়ে প্রবেশের চেষ্টা করেন। এ সময় সিলেট মহানগর পুলিশের দায়িত্বরত ট্রাফিক সদস্য মোহাম্মদ আলী ওয়ানওয়ে সড়ক দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে যেতে তানজিলকে বাধা দেন। কিন্তু সিগন্যাল অমান্য করে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন তানজিল।

এ অবস্থায় ট্রাফিক পুলিশের সদস্য আলী দৌড়ে গিয়ে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করলে তানজিল মোটরসাইকেল থেকে নেমে ট্রাফিক পুলিশের হাতের লাঠি কেড়ে নিয়ে বেধড়ক পেটাতে শুরু করেন। পরে চৌহাট্টা পয়েন্টে থাকা ট্রাফিকের অন্য সদস্যরাও এগিয়ে এসে ওই কর্মকর্তাকে আটক করেন এবং তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটিও জব্দ করে কোতোয়ালি থানায় নিয়ে যান।