ধান ক্ষেতে পানি দেওয়ার ড্রেন কাটাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে আহত-১১

আজিজুর রহমান, সোহানা ফেরদৌস সুইটি, কেশবপুর: কেশবপুরে ইরি-বোরো ধান ক্ষেতে পানি দেওয়ার ড্রেন কাটাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাসহ ১১ জন আহত হয়েছে।

আহতদের মধ্যে ৭ জনকে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকি ২ জন আহতকে কেশবপুর কপোতাক্ষ সার্জিক্যাল ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। অপর ২ জন আহত স্থানীয় চিকিৎসা নিয়েছে। এর মধ্যে আবুল কালাম মোড়লের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে শুক্রবার দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামের মৃত আফসার আলী মোড়লের ছেলে যশোর সরকারী এমএম কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবুল কালাম মোড়লের সাথে একই গ্রামের মৃত মুজির আলী মোড়লের ছেলে আবুল কাশেম মোড়লের দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। আবুল কালাম মোড়লর ইরি-বোরো ধান ক্ষেতে পানি দেওয়ার জন্য একটি ড্রেন কাটাকে। ওই ড্রেন আবুল কাশেম মোড়লের জমির ওপর দিয়ে কাটা হয়েছে দাবী করে কথা কাটা-কাটির এক পর্যায়ে শুক্রবার সকালে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।

সংঘর্ষে আহত হন যশোর সরকারী এমএম কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবুল কালাম মোড়ল (২৯), তার ভাই আব্দুল লতিফ মোড়ল (৩৫), ভাবী হালিমা বেগম (২৮), নূর ইসলাম দফাদার (৫১), রমিছা বেগম (৪০), আক্কাস আলী দফাদার (৬৫), যুবলীগ নেতা মাসুম মোড়ল (৩৩), তার পিতা আবুল কাশেম মোড়ল (৫৫), আয়ুব হোসেন মোড়ল (৫২), মর্জিনা বেগম (৪০), ছালমা বেগম (২৫)।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কেশবপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল বলে আহতরা জানান।