বগুড়ায় পুলিশ পরিচয়ে মটরসাইকেল ছিনতাই

খালিদ হাসান, বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার আদমদীঘিতে পুলিশ পরিচয়ে মেহেদী হাসান (২২) নামে এক কলেজ ছাত্রকে ছুরিকাঘাত করে মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নিয়েছে দূর্বৃত্তরা।

বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) রাতে উপজেলার বগুড়া-নওগাঁ সড়কের বোয়ালিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে চিকিৎসার জন্য মেহেদীকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তবে আদমদীঘি ও দুপচাঁচিয়া থানা পুলিশের দাবি, ঘটনাস্থল তাদের থানা এলাকার মধ্যে নয়। মেহেদী হাসান আদমদীঘি উপজেলার শিববাটি গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি নওগাঁ সরকারি কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। মেহেদী পার্শ্ববর্তী দুপচাঁচিয়া উপজেলার শ্রীপুর গ্রামে নানা বদিউজ্জামানের বাড়িতে থাকেন।

মেহেদীর নানা বদিউজ্জামান জানান, মেহেদী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর আদমদীঘির শিববাটির বাড়ি থেকে পালসার মোটরবাইকে দুপচাঁচিয়ার শ্রীপুর গ্রামে নানার বাড়ি যাচ্ছিলেন। রাত সাড়ে সাতটার দিকে বগুড়া-নওগাঁ সড়কের বোয়ালিয়া এলাকায় একদল দুর্বৃত্ত তার পথরোধ করে। তারা পুলিশ পরিচয় দিয়ে মোটরবাইকের কাগজপত্র দেখতে চায়।

মেহেদী কাগজ দেখাতে না পারলে দুর্বৃত্তদের একজন ওই বাইকের পেছনে করে মেহেদীকে তুলে নিয়ে যায়। পরে নির্জন সড়কে নিয়ে বাইক থেকে নামিয়ে মেহেদীর উরুতে ছুরিকাঘাত করা হয়। এরপর মোটরবাইক নিয়ে ওই ব্যক্তি পালিয়ে যায়।

পথচারীরা রক্তাক্ত অবস্থায় মেহেদীকে উদ্ধার করে প্রথমে আদমদীঘি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

আদমদীঘি থানার ওসি মনিরুল ইসলাম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি দুপচাঁচিয়া থানার বোয়ালিয়া এলাকায় ঘটেছে। তবে দুপচাঁচিয়া থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, ঘটনাস্থল বোয়ালিয়া আদমদীঘি উপজেলায়। সীমানা প্রশ্নে শুক্রবার বেলা ১২টা পর্যন্ত এ ঘটনায় কোনও থানায় মামলা হয়নি।