মাদারীপুরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা-আটক ৪

সাব্বির হোসাইন আজিজ, মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার কদমবাড়ী এলাকায় বুধবার রাতে জমিজমা বিরোধকে কেন্দ্র করে ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক ইউপি সদস্য যুধিষ্টির বসুকে (৫০) কুপিয়ে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা।

নিহত যুধিষ্টির বসু রাজৈর উপজেলার কদমবাড়ীর ইউনিয়নের মৃধাবাড়ী গ্রামের প্রেমচাঁদ বসুর ছেলে ও স্থানীয় কদমবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য। এ ঘটনায় পুলিশ মহিলাসহ চারজনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে ।

পুলিশ, এলাকাবাসী ও পারিবারক সূত্রে জানা যায়, যুধিষ্টির বসু বুধবার বিকালে একই ইউনিয়ের দীঘিরপাড় গ্রামে ধর্মীয় কবি গান শুনতে যায়। সেখান থেকে বাড়ীতে এসে রাতের খাবার খেয়ে তড়িঘড়ি করে বাড়ীর পাশে মুরগীর খামার দেখতে বেড়িয়ে যায়। এরপর ঘরের সকলে রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতে ঘুম ভেঙ্গে গেলে স্বামীকে ঘরে না পেয়ে খোজাখুজি শুরু করে স্ত্রী ইতি বসু। পরে বাড়ীর পাশে মুরগীর খামারে যাবার রাস্তার পাশে লাশ দেখতে পায়। পরে রাজৈর থানা পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে মনয়না তদন্তের জন্য মাদারীপুর মর্গে প্রেরণ করে।

যুধিষ্টির বসুর বড় ছেলে রনি বসু জানান, আমার কাকাতো ভাই যতিশ বসু, সতিশ বসু, পাচু বসুর সাথে বাড়ীর পাশে পুকুরের জায়গা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। আমারা আদালতে মামলা করি। কয়েকদিন পূর্বে মামলা রায় আমাদের পক্ষে আসে। এতে যতিশ বসু ও তার ভাইয়েরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং ওরাই আমার বাবাকে পরিকল্পিত ভাবে রাতে কুপিয়ে হত্যা করে।

নিহতের স্ত্রী ইতি বসু অভিযোগ করে জানান, যতিশ বসু ও তার ভাইয়েরা আমার স্বামীকে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করেছে। আমি এ হত্যার দৃষ্টান্ত মূলক বিচার চাই।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল মোর্শেদ জানান, জখমকৃত যুধিষ্টির বসুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য যতিশ বসু, বিমল বসু, কনক বসু ও মিঠু বসুকে আটক করা হয়েছে। তবে অভিযুক্তরা অনেকেই বাড়ীঘরে তালা মেরে পালিয়ে গেছে।