অবশেষে ফেরত এলো সেই বাংলাদেশির লাশ

অবশেষ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ লালমনিরহাটে পাটগ্রাম সীমান্তের ওপারে গুলিতে নিহত বাংলাদেশি আশাদুলের (২৯) লাশ। নিহত আশাদুল পাটগ্রামের বাউরা ইউনিয়নের নবীনগর গ্রামের মতিয়ার রহমানের ছেলে।

সোমবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে পাটগ্রাম থানার এসআই জিল্লুর রহমানের কাছে ভারতীয় কোচবিহার জেলার মেকলিগঞ্জ থানার এসআই সুবাস চন্দ্র রায় তার লাশ হস্তান্তর করেন।

এর আগে শুক্রবার রাতে পাটগ্রামের নবীনগর এলাকার আশাদুল ইসলমাসহ একদল বাংলাদেশি ডাঙ্গাটারী মেছেরঘাট সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ভারতে যায় গরু আনতে। সেখানে তারা ভারতীয় ব্যবসায়ীদের সহযোগিতায় গরু নিয়ে শনিবার ভোরে ওই সীমান্তের ৮০২ নম্বর মেইন পিলারের ১০ নম্বর উপপিলারের পাশ দিয়ে ফিরছিলেন। এ সময় ভারতের কোচবিহার ১৪৩ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের নিউ কুচলিবাড়ি বিএসএফ ক্যাম্পের টহলরত সদস্যরা গুলি ছোড়লে আশাদূল নিহত হয়। এরপর ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ নিয়ে যাওয়া হয়।

এরপর গত শনিবার দুদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে এক পতাকা বৈঠকে আশাদুলের নিহতের ঘটনা স্বীকার করে এবং তার লাশ দেয়ার বিষয়ে সম্মত হয় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। আর সেই অনুযায়ী সোমবার সকালে অবশেষে ভারতীয় থানা পুলিশের মাধ্যমে পাটগ্রাম থানা পুলিশের কাছে আশাদুলের লাশ হস্তান্তর করা হয়।

নিহত বাংলাদেশি লাশ ফেরত দেয়া বিষয়ে পাটগ্রাম থানার ওসি আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেন জানান, নিহত আশাদুলের লাশ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।