ইজিবাইকে দিনরাত কাটানো সেই বাবা-মেয়ের পাশে জেলা প্রশাসক

দিন রাত ইজিবাইকে বাবার সঙ্গে কাটে জান্নাতুল মাওয়ার (৬)। অবশেষে সেই ইজিবাইকে বাবার সঙ্গে দিন্রাত কাটানো জান্নাতুল মাওয়াকে কাছে ডেকে স্নেহের পরশ দিলেন যশোরের জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল। আদর করে শুনলেন তার কথা। কথা বললেন মাওয়ার বাবা ইজিবাইকচালক মুরাদুর রহমান মুন্নার সঙ্গে। মাওয়ার শৈশব ফিরিয়ে দেয়ার ভাবনার কথাও জানালেন যশোরের জেলা প্রশাসক।

জান যায়, যশোর শহরের নাজির শংকরপুর চাতাল মোড় এলাকার একটি ইজিবাইক চার্জের গোডাউনে থাকেন ইজিবাইকচালক মুন্না। সারাদিন তিনি ইজিবাইক চালান, আর রাতে ওই গোডাউনে থাকেন। মুন্নার একমাত্র সন্তান জান্নাতুল মাওয়া। মাওয়ার মা স্বামী-সন্তান ছেড়ে চলে গেছে। তাই তাকে পাশে বসিয়ে সারাদিন ইজিবাইক চালান মুন্না। কারণ মেয়েটিকে রেখে যাওয়ার কোনো স্থান তার নেই। এর জন্য সারাদিন বাবার পাশেই থাকে মেয়েটি।

এদিকে ইজিবাইকে এই ছবি ও রিপোর্ট ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ায় পর গতকাল মঙ্গলবার তাদের ডেকে নেন যশোরের জেলা প্রশাসক। সর্দি-জ্বর হওয়ায় মাওয়াকে হাসপাতালে পাঠিয়ে ডাক্তার দেখিয়ে ওষুধও কিনে দেন তিনি। পরে তাকে আদর করে উপহার দেন। এ সময় তিনি মুন্নার সঙ্গেও কথা বলেন।

এ সময় মুন্না জেলা প্রশাসককে জানান, স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে গেছে। মেয়েটি বড় হচ্ছে, তাকে স্কুলে ভর্তি করাতে হবে। এ জন্য তার একটি মাথাগোঁজার ঠাঁই দরকার। এ সময় জেলা প্রশাসক এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দেন। মেয়েটি যাতে তার স্বাভাবিক শৈশব জীবন ফিরে পায় সেটি নিশ্চিত করার ব্যাপারেও আশ্বস্ত করেন।

এ সময় মুন্না গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ডিসি স্যার ডেকে নিয়ে আমার ও মাওয়ার কষ্টের কথা শুনেছেন। তিনি অনেক স্নেহ-ভালোবাসা দেখিয়েছেন। সহযোগিতা পেলে মেয়েকে লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষের মতো মানুষ করতে চাই।’