এটা রুবেল নয়, কার্তিককে সাউদি

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ টুয়েন্টি ম্যাচে জয়ের জন্য ১২ বলে ৩০ রান প্রয়োজন ভারতের। উইকেটে তখন দিনেশ কার্তিক এবং ক্রুনাল পান্ডে। দুজনে মিলেই ঝড় তোলেন এই সময়ে।

১৯তম ওভারে সেইফার্ট আসেন বোলিংয়ে। এই ওভারে ১৪ রান নেন তারা দুজনে। শেষ ওভারে সাউদির বলে ১৬ রান প্রয়োজন ছিল ভারতের। দিনেশ কার্তিক শেষ ওভারে নিতে পারে কেবল ১১ রান। আর তাতেই ৪ রানে হার নিশ্চিত হয় ভারতের।

অথচ ঠিক এমন পরিস্থিতিতেই নিদাহাস ট্রফিতে ভারতকে জিতিয়েছিল কার্তিক। বরং আরেকটু কঠিন পরিস্থিতি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩০ রান প্রয়োজন হলেও বাংলাদেশের বিপক্ষে রানের প্রয়োজন ছিল ৩৪।

আজ সেইফার্ট বোলিংয়ে এসে দিয়েছেন ১৪ রান। সেদিন রুবেল হোসেন বোলিংয়ে এসে দিয়েছিলেন ২২ রান।

আজ শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১৬ রান। সেদিন প্রয়োজন ছিল ১২ রান। পার্থক্য আজ বোলিং করেছে নিউজিল্যান্ডের সেরা পেসারদের একজন। আর সেদিন বোলিং করেছিল পার্টটাইম পেসার সৌম্য সরকার।

সৌম্য প্রথম বলটি করেন ওয়াইড। দ্বিতীয় বল দেন ডট। তৃতীয় ও চতুর্থ বলে দেন ১ রান। সব মিলিয়ে প্রথম তিন বলে ৩ রান দেন সৌম্য।

এরপর সৌম্যর চতুর্থ বলে চারর মারেন ভিজয় শঙ্কর। পঞ্চম বলে আউট হয়ে যান তিনি। শেষ বলে প্রয়োজন ছিল ৫ রান। ছক্কাই মেরে দেন দিনেশ কার্তিক।

অথচ আজকেও প্রায় একই রকম পরিস্থিতি ছিল কার্তিকের সামনে। কিন্ত আজ সাউদির বলে প্রয়োজনীয় রান তুলতে পারেননি তিনি।