চেলসিকে হারিয়ে শিরোপা জিতল ম্যানসিটি

ইংলিশ কারাবাও কাপের ফাইনালে উত্তেজনাপূর্ন টাইব্রেকারে চেলসিকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে ম্যানচেষ্টার সিটি। ম্যাচে নির্ধারিত সময়ে কোন দল গোল করতে না পারলে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে ৪-৩ গোলে জয় পায় সিটিজেনরা।

ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এই ফাইনালে ম্যাচের প্রথমার্ধটা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রন করে ম্যানসিটি। একের পর এক আক্রমন করে তারা। বেশ কয়েকবার গোল করার খুব কাছে পৌছে গেলেও সেটা আর পাওয়া হয়নি তাদের। অধিকাংশ আক্রমন থেকেই পরিষ্কার কোন গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারেনি দলটি।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে দারুণ এক সুযোগ পেয়েছিল হ্যাজার্ড। কিন্তু পেনাল্টি বক্সের ভেতরে গিয়ে বলের নিয়ন্ত্রন হারান তিনি।

৫৫ মিনিটের মাথায় গোল পায় অ্যাগুয়েরু। তবে অফসাইডের কারণে গোলটি বাতিল করা হয়।

ম্যাচের ৬৭ মিনিটে সবচেয়ে সহজ সুযোগটি নষ্ট করেন চেলসি তারকা কান্তে। হ্যাজার্ড দুর্দান্ত ভাবে দারুণ এক পাস দেন কান্তেকে। বল পোস্টে রাখতে পারলেই গোল, এমন বল কান্তে মারেন বারপোষ্টের উপর দিয়ে।

ম্যাচের ৭৬ মিনিটে আরেকবার হ্যাজার্ড ম্যাজিক। দারুণ এক বল তিনি পাস দেন পেড্রোকে। তিনি স্পানিশ তারকা বল হারিয়ে সুযোগ হারান। ৯০ মিনিট পর্যন্ত কোন দল গোল করতে না পারলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ার্ধে প্রায় গোল পেয়েই গিয়েছিল ম্যানসিটি। কিন্তু তাদের ৩ তারকা একসাথে মিস করেন সেই সুযোগ। অতিরিক্ত সময়েও কোন দল গোল করতে না পারলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে।

প্রথম শট নেয় চেলসি তারকা জর্জিনহো। তার দুর্বল শট আটকে দেয় এডারসন। এরপর প্রথম শটে গোল করে ম্যানসিটি তারকা গুন্ডুগান।

পরের দুই শটে দুই দলই গোল করে। তৃতীয় শটে চেলসি তারকা এমারসন গোল করলেও লিরয় সানের শট আটকে দেয় কেপা। ফলে টাইব্রেকারেও তখন ৩ শট শেষে থাকে সমতা।

চতুর্থ শটে ডেবিড লুইজের শট বারপোষ্টে প্রতিহত হলে পিছিয়ে পড়ে চেলসি। আর পরের সব শটে ম্যানসিটি গোল করলে ৪-৩ ব্যবধানে জিতে মৌসুমে প্রথম শিরোপা জিতে তারা।