তামিমকে ফিরিয়ে দিলেন মাশরাফি

রংপুরের দেয়া ১৬৬ রানে লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই হয়েছিল কুমিল্লার। তামিম-লুইসের ব্যাটে এগিয়ে যাচ্ছিল ভালো ভাবে। তবে দলীয় ৩৫ রানের মাথায় মাশরাফির বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ফিরে যান তামিম। ১৪ বলে ১ চার ও ১ ছক্কায় ১৭ রান করেন তামিম।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কুমিল্লার সংগ্রহ ৭.৩ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৫৯ রান।

এর আগে চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরের প্রথম কোয়ালিফায়ারে আজ সোমবার (৪ ফেব্রুয়ারি) মুখোমুখি হয় রংপুর রাইডার্স ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় শুরু হয় ম্যাচটি।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ব্যাট করতে নেমে শুরু ভালোই করে রংপুর। দুই ওপেনার মেহেদি মারুফ ও ক্রিজ গেইল মাথা করে খেলছিলেন। তবে দলীয় ১৭ রানের মাথায় ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ওয়াহাব রিয়াজের বলে সঞ্জিত সাহার হাতে ধরা পড়ে মাত্র ১ রান করে ফিরে যান। মেহেদি ফিরে গেলেও তাণ্ডব চালান গেইল।

তবে দলীয় পঞ্চম ওভারে সঞ্জিত সাহা রান নিতে গিয়ে ভুল বোঝাবুঝিতে দুই প্রান্তে আউট হন দুই ব্যাটসম্যান। তামিমের থ্রোতে উইকেটরক্ষক আনামুল আউট করেন মিথুনকে। তবে অপর প্রান্তে তখন পৌছাতে পারেনিন। আনামুল আবার বল মানের সেই প্রান্তে। সঞ্জিত সাহা বেল ফেলে দেন দেখা যায় গেইলও আউট হন। তবে মিথুন আগে আউট হওয়াতে বেঁচে যান গেইল।

৩ বলে ৩ রান করে ফিরে যান মিথুন। প্রথম দিকে কিছুটা গুটিয়ে থাকলেও ভাগ্যক্রমে বেঁচে গিয়েই শুরু করেন তাণ্ডব গেইল। এবারের বিপিএলে প্রথম থেকেই ব্যর্থ ছিলেন গেইল। কিন্তু যখনি দলের প্রয়োজন হল তখনি নিজের খোলস ছেড়ে বেড়িয়ে এলেন তিনি। তবে নিজের কাঙ্খিত অর্ধশতক হাঁকাতে পারলেন না। সঞ্জিত সাহা বলে মেহেদি ক্যাচ মিস করলে দ্বিতীয়বার জীবন পান গেইল।

তবে ক্যাচ মিস করলেও বোলিংয়ে এসে নিজেই তুলে নিলেন মেহেদি। ৪৪ বলে ৪৬ রান করে বিদায় নেন ব্যাটিং ঝড় গেইল। আর গেইলের ক্যাচটি নিয়েছিলেন থিসারা পেরেরা। কিন্তু ক্যাচটি প্রথমে ধরতে চেয়েছেন তামিম। কিন্তু নিজের উপর বিশ্বাস এতোটাই বেশি মনে করলেন যে তামিমকে ক্যাচটি ধরতে নিষেধ করে নিজে ধরে গেইলকে ফিরিয়ে দিলেন।

তবে পরে ওভারে এলভি ফাঁদে ফেলে উইকেট তুলে নেন সঞ্জিত সাহা। ৯ বলে ৩ রান করা বোপারাকে ফিরিয়ে দেন সঞ্জিত। তবে শেষ দিকে তাণ্ডব চালান রুশো ও বেনি হাওয়েল। অবশ্য তার তাণ্ডব থামান সাইফউদ্দিন। ৩১ বলে ২ ছয় ও ৪ চারে ৪৪ রান করে আনামুলে হাতে ধার পরে ফিরে যান।

রুশো বিদায় নিলেও তাণ্ডব চালিয়ে নিজের অর্ধশতক তুলে নেন বেনি হাওয়েল। ২৭ বলে ৫২ রান করে নিজের অর্ধশতক তুলেন নেন। বেনি ২৮ বলে ৫৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। নাহিদূল করেন ৩ বলে ৬ রান। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে রান ১৬৫ করে রংপুর। আর জিততে হলে ২০ ওভারে ১৬৬ রান করতে হবে কুমিল্লাকে।