পাকিস্তান সেনাবাহিনীর জরুরি বৈঠক

গত কয়েক দিন আগে পুলওয়ামাতে ভয়ঙ্কর আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটে। সেই হামলায় ৪০ জন সিআরপিএফ সৈন্য নিহত হয়। ভারত দাবি করেছে, এই হামলার জন্য দায়ী পাকিস্তানভিত্তিক জৈশ-ই-মোহাম্মদ। তবে পাকিস্তান বলছে, বিনা প্রমাণে এই দাবি মেনে নেয়া যায় না। তারা পর্যাপ্ত প্রমাণ দিতে ভারতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

এদিকে ভারতের বিভিন্ন মহল হুমকি দিচ্ছে, এর জন্য পাকিস্তান দায়ী এবং এর পাল্টা জবাব দেয়া হবে। সার্জিকাল স্ট্রাইক কিংবা সরাসরি যুদ্ধের কথাও বলছে অনেকে। ভারতের যেকোনো ধরনের হামলার মুখে পাকিস্তানও প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে।

এদিকে মঙ্গলবার সে দেশের সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কার্যত ভারতকে যুদ্ধ থেকে সতর্ক করেছেন ইমরান। তার দাবি, যুদ্ধ মানুষ শুরু করলেও কোথায় গিয়ে যে তা থামবে কেউ বলতে পারবে না।

তাছাড়া শুধু মন্তব্য করাই নয়, ভারতের হামলার আশঙ্কায় জাতিসঙ্ঘেরও দ্বারস্থ হচ্ছে পাকিস্তানও। কিন্তু সেখানেই থামতে চাইছে না পাকিস্তান। আর তাই জরুরি বৈঠকে বসছে পাকিস্তান।

এদিকে চলতি সপ্তাহেই সে দেশের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসছে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা। যেভাবে টেনশন বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে পাকিস্তানের রণকৌশল কি হয় তা ঠিক করতেই পাকিস্তান সেনাবাহিনী এই বৈঠক ডেকেছে বলে জানা গেছে।

তাছাড়া সেখানে ইসলামাবাদের পাকিস্তানের প্রশাসনিক স্তরে সমস্ত কর্মকর্তাকে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। এদিকে উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে ভারতকে শান্ত থাকতে বলেছে চীন। একদিকে যখন ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্কে পারদ চড়ছে, তার মধ্যেই শান্ত থাকতে বলল চীন।