বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে বয়কট করার ব্যাপারে মুখ খুললেন সুনীল গাভাস্কার

ভারতের কাশ্মীর পুলওয়ামায় ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী ‘সিআরপিএফ’ এর উপর হামলার জেরে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের সঙ্গে ম্যাচ বয়কটের আহবান জানিয়েছেন হরভজন সিং ও মোহাম্মদ আজহারউদ্দীনের মতো সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটাররা।

এদিকে আসন্ন ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ আয়োজন যাতে পাকিস্তানকে ছাড়াই হতে পারে, সেই বিষয়েই এখন থেকে কোমর বেঁধে আইসিসির কাছে যাচ্ছে ভারত। বিসিসিআইয়ের অন্দরমহলের রিংটোন বেশ পরিষ্কার, বিশ্বকাপে হয় ভারত থাকবে না হলে পাকিস্তান। ভারতীয় গণমাধ্যমে এমনই খবর প্রকাশিত হয়েছে।

এদিকে বিশ্বকাপে আগামী ১৬ জুন পাকিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার কথা ভারতের। কিন্তু সুনীল গাভাস্কারের অভিমত, পাকিস্তানকে বয়কট করলে ভারতেরই ক্ষতি। এনিয়ে তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, বিশ্বকাপে ভারত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে না খেললে কার জয় হবে?

সুনীল গাভাস্কার বলেছেন, ‘আমি সেমিফাইনাল, ফাইনালের কথা বলছিই না। কে জিতবে? পাকিস্তান জিতবে, কারণ ওরা দুটো পয়েন্ট পাবে। ভারত এপর্যন্ত বিশ্বকাপে যতবারই দেখা হয়েছে, পাকিস্তানকে হারিয়েছে। সুতরাং যেখানে পাকিস্তানকে হারিয়ে আমরা নিশ্চিত করতে পারি যে, ওরা টুর্নামেন্টে এগতে পারবে না, সেখানে ম্যাচ বয়কট করে আসলে দুটো পয়েন্ট খোয়াব।

তিনি আরও বলেন, ‘যদিও আমি দেশের পাশেই আছে। সরকার যে সিদ্ধান্তই নিক, আমি পূর্ণ সমর্থন করব। দেশ যদি চায়, পাকিস্তানের সঙ্গে খেলা উচিত নয়, আমি মেনে নেব। পাকিস্তানের লোকসান কোথায়? তখনই যখন ওরা ভারতের বিরুদ্ধে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলবে না। অনেক দলের টুর্নামেন্টে ওদের সঙ্গে না খেললে ভারতেরই লোকসান।’

সুনীল গাভাস্কার বলেন, ‘যদিও বুঝতে পারছি, অসন্তোষ, আবেগ তুঙ্গে রয়েছে, কিন্তু গোটা বিষয়টা আরেকটু গভীরে ঢুকে বিচার করা উচিত। ওদের সঙ্গে না খেললে কী হবে? ভাল করেই জানি, দুটো পয়েন্ট হাতছাড়া করেও কোয়ালিফাই করার মতো যথেষ্ট শক্তি ভারতের আছে। কিন্তু কেন ওদের হারিয়ে যাতে কোয়ালিফাই করতেই না পারে, সেটা সুনিশ্চিত করব না?’

এদিকে বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে নিষিদ্ধ করার দাবি করলেও ধাক্কা খাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি বলেও অভিমত জানান গাওস্কর। তিনি বলেন, ‘চেষ্টা করতেই পারে, কিন্তু সেটা হবে না। কেননা অন্য সদস্য দেশগুলিকে দাবিটা মানতে হবে, যা হবে বলে মনে হয় না। আমরা সবাই যা ঘটেছে, তাতে আঘাত পেয়েছি, বিরাট ট্র্যাজেডি এটা। কিন্তু এতে আইসিসি-তে গিয়ে কাজ হবে কিনা, খুব নিশ্চিত নই। অন্য দেশগুলি বলতে পারে, এটা ওদের ব্যাপার, ওদেরই সামলাতে দিন, আমাদের জড়াবেন না।’