ভারতের বিরুদ্ধে পালটা জবাব দিতে জরুরি বৈঠকে ইমরান খান

কাশ্মীরের পুলওয়ামার জঙ্গি হামলার ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ভারত পাকিস্তান সীমান্ত। এরই মধ্যে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে সার্জিকাল স্ট্রাইক চালালো ভারত। মিরাজ ২০০০ বিমানের সাহায্যে ক্রমাগত হামলা চালায় ভারতীয় বিমান সেনারা। বালাকোটে বড়সড় বিস্ফোরণ ঘটায় ভারতীয় যুদ্ধবিমান। এ হামলায় প্রায় ৩০০ ‘জঙ্গি’ প্রাণ হারিয়েছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যম।

এদিকে, ভারতের এমন আকস্মিক হামলার পর জরুরি বৈঠক তলব করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য দেশটির শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেছেন তিনি।

এর আগে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে, নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় যুদ্ধবিমান সে দেশের মাটিতে প্রবেশ করলে পাকিস্তানে সেনা দ্রুত জবাব দেওয়ায় ফিরে এসেছে ভারতীয় যুদ্ধবিমান।

বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তান সেনা মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গাফুর ট্যুইট করে জানান, ‘ভারতীয় বিমান সেনারা নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে পাকিস্তানে প্রবেশ করেছিল। পাল্টা জবাব দিয়েছে পাকিস্তানি বিমান সেনারাও। বাধ্য করা হয়েছে ভারতীয় যুদ্ধ বিমানকে ফিরে যেতে।’

তিনি আরও জানান, ‘মুজাফফরাবাদ-এর দিক থেকে পাকিস্তানে ঢোকে ভারতীয় যুদ্ধবিমান।’

পাকিস্তানের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, পাকিস্তানের বাহিনী আইএসপিআর দ্রুত প্রত্যাঘাত করায় তাড়াহুড়োয় ঠিকমতো লক্ষ্যে বোমা নিক্ষেপ করতে পারেনি ভারতীয় যুদ্ধবিমান।

এর আগে ভারতীয় যুদ্ধবিমান হামলা চালানোর পরেই পাকিস্তানের সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি জরুরি ভিত্তিতে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক ডেকেছেন। সেখানকার বর্তমান পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য জরুরি বৈঠক ডাকেন তিনি। বৈঠকে পাকিস্তানের সাবেক সচিব ও রাষ্ট্রদূতরা অংশ নেন।