ভারতে বাংলাদেশি নায়িকা লাঞ্চিত

ভারতের হায়দরাবাদ বিমানবন্দরে হেনস্তার শিকার হলেন বাংলাদেশের এক অভিনেত্রী। ভারতের তেলুগু ইন্ডাস্ট্রির মূলধারার ‘সাকালাকালা ভাল্লাবুড়ু’ বাংলাদেশের কোনও অভিনয়শিল্পীর ক্ষেত্রে এটাই তেলুগু ইন্ডাস্ট্রিতে প্রথম পদচারণা। ভারতের হায়দ্রাদের দেড় শতাধিক প্রেক্ষাগৃহে চলছে বাংলাদেশি মেয়ে উদীয়মান মডেল ও অভিনেত্রী মেঘলা মুক্তা অভিনীত ‘সাকালাকালা ভাল্লাবুড়ু’ ছবিটি।

গত (৭ ফেব্রুয়ারি) হায়দ্রাবাদ থেকে ঢাকা ফেরার সময় এমন হেনস্তার শিকার হলেন তিনি।

বিষয়টি নিয়ে মেঘলা মুক্তা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘গত বৃহস্পতিবার আমি এয়ার ইন্ডিয়ার AI780 নম্বর ফ্লাইটে হায়দ্রাবাদ থেকে বাংলাদেশে ফিরছিলাম। বিমানে আমার ২৮ কেজি ওজন বহন করার অনুমতি ছিল, কিন্তু আমার সকল মালামালের ওজন হয়েছিল ২৯ কেজি। তাই আমি অতিরিক্ত ওজনের জন্য নিয়ম অনুযায়ী অর্থ পরিশোধ করতে রাজি ছিলাম। কিন্তু এয়ার ইন্ডিয়ার গ্রাউন্ড স্টাফ সুপারভাইজার কানিজ ফাতেমা আমাকে কেডিট কার্ডে অর্থ পরিশোধ করতে বলেন।’

মেঘলা বলেন, ‘আমি ক্যাশ পেমেন্ট করতে চাইলে তিনি আমাকে বলেন, আমার নাকি বাসে ভ্রমন করা উচিত?‘ তারপর আমি বললাম যে আমি ডলার এক্সচেঞ্জ করে পেমেন্ট করছি, কিন্তু তাতেও কানিজ ফাতেমা রাজি হয়নি। ওই ফ্লাইটে আমার কিছু বন্ধু ছিল। তারা আমার কিছু ব্যাগ ভাগাভাগি করতে চাইলে কানিজ ফাতেমা আমাকে বলেন, আপনি এখানে কোন ব্যবসা করতে বা কোন চুক্তি করতে পারেন না।’

এ ঘটনা তিনি তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘একজন মডেল বা অভিনেত্রী হিসেবে নয়, একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। সেই সাথে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে এর সুষ্ঠ বিচার দাবী করি। আমি এই ধরণের ঘটনার স্বীকার হয়েছি, কিন্তু আমার জায়গায় সাধারন একটা মানুষ এমন ঘটনার শিকার হতে পারতো।কোন এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের একজন যাত্রীর সাথে এইরকম আচরণ করার অধিকার নাই। একজন অভিনেত্রী হিসাবে নয় সাধারন একজন নারী যাত্রী হিসেবে আমি একটা স্ট্যান্ড নিয়েছি। কারো সাথেই আপনি এই রকম বাজে ব্যবহার করতে পারেন না। আপনি বাজে ভাষা ব্যবহার করতে করতে পারেন না।’

উদীয়মান মডেল ও অভিনেত্রী বলেন, ‘আমার ইন্সটাগ্রাম একাউন্টে এয়ার ইন্ডিয়া তাদের অফিশিয়াল একাউন্ট থেকে কাছে দুঃখ প্রকাশ করে কমেন্ট এবং মেসেজ করেছে এবং তারা সেখানে বলেছে এই ঘটনার তারা তদন্ত করে দেখবে। তবে আমি এয়ার ইন্ডিয়াকে মেইল করে অফিশিয়াল লেটার দিয়েছি। তাদের উত্তরের জন্য অপেক্ষা করছি এখন।’

গত জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে ঢাকা থেকে হায়দরাবাদে উড়ে যান মেঘলা। ছবি মুক্তি উপলক্ষে এর প্রচারণায় অংশ নিতে গিয়েছিলন তিনি। আর হায়দরাবাদ বিমানবন্দরে এয়ার ইন্ডিয়ার এক গ্রাউন্ড স্টাফের কাছে ভয়ংকর নিগ্রহের শিকার হলেন ঢাকার মেয়ে মেঘলা মুক্তা।