সানাই ও সালমানের পর এবার ৩ ‘ডিজিটাল ভাদাইমা’ আটক

বর্তমানে শর্টফিল্মের নামে অশ্লীল ভিডিওচিত্র তৈরি করে ইউটিউবসহ বিভিন্ন মাধ্যমে সেগুলো প্রচার করে যুব সমাজকে বিপথগামী করার অভিযোগে ‘ডিজিটাল ভাদাইমা’ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলের সংশ্লিষ্ট তিনজনকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

আজ ২৫ ফেব্রুয়ারি সোমবার বিকালে ঢাকার বিজয়নগর এলাকা থেকে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিটের মিন্টো রোডের কার্যালয়ে আনা হয়।

এ ব্যাপারে ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি ও ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ভাদাইমা সংক্রান্ত অভিনেতা, এই চ্যানেলের এডমিন ও মালিকসহ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়েছে। তাদের অপরাধ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

এ সময় পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘নিরাপদ ইন্টারনেটের স্বার্থে এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে। এ বিষয়ে আরও তথ্যাদি পরবর্তীতে জানানো হবে।’

এদিকে সম্প্রতি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের নেতৃত্বে নিরাপদ ইন্টারনেট কাম্পেইন শুরু হয়। এর অংশ হিসেবে অনলাইন দুনিয়ায় অশ্লীলতার দায়ে সমালোচিত বিপথে যাওয়া মডেল ও সংশ্লিস্টদের তালিকা তৈরি করে একে একে এনে কাউন্সিলিং করা হচ্ছে।

তাছাড়া এর আগে কথিত অভিনেত্রী সানাই মাহবুব সুপ্রভা ও বিতর্কিত ইউটিউবার সালমান মুক্তাদিরকে ডেকে এনে কাউন্সিলিং করে পুলিশ। পরে তারা এ ধরণের কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকবে বলে মুচলেকা দেন।

পুলিশের একটি সূত্র মতে, যেসব ইউটিউব চ্যানেলে শর্টফিল্মে অশ্লীলতা প্রচার করা হচ্ছে সেগুলোর লম্বা তালিকা করা হয়েছে। এছাড়া যেসব তারকারা লাইভে এসে কিংবা নাটকে বা ফেসবুক পোস্টে অশ্লীল বার্তা দেবেন তাদেরও জবাবদিহিতার আওতায় আনা হবে।