অবশেষে নিউজিল্যান্ড সব ধরনের সেমি অটোমেটিক বন্দুক নিষিদ্ধ

গত শুক্রবার অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত উগ্রপন্থী শেতাঙ্গ জঙ্গি বেন্টন ট্যারান্ট ক্রাইস্টজচার্চের দুটি মসজিদে হামলা চালায়। আধা-স্বয়ংক্রিয় বন্দুক নিয়ে নৃশংস হত্যাযজ্ঞে অন্তত ৫০ জন মুসল্লির প্রাণহানি ঘটে। গুলিতে আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরো কমপক্ষে ৪৯ জন। এদের মধ্যে ১২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এই সন্ত্রাসী হামলার পর সোমবার নিউজিল্যান্ডের মন্ত্রিসভা দেশটির অস্ত্র আইন সংশোধনে সায় দিয়েছে। এরই মধ্যে সব ধরনের সেমি অটোমেটিক মিলিটারি বন্দুক নিষিদ্ধ করল নিউজিল্যান্ড দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরডান ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার জেরে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। খবর দিয়েছে রয়টার্স ও বিবিসির।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) এ ঘোষণা দেন জাসিন্দা আরডান।

প্রধানমন্ত্রী জানান, আগামী ১১ এপ্রিল অস্ত্রসংক্রান্ত এই নতুন আইন পাস করা হবে বলে তিনি আশা করছেন।

এ বিষয়ে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ আইন পাসের সঙ্গে সঙ্গেই একটি স্কিমের মাধ্যমে নিষিদ্ধ করা এই অস্ত্রগুলো অস্ত্র মালিকদের কাছে থেকে ফেরত নেয়া হবে। যাতে তারা এর মাধ্যমে তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারে।

উল্লেখ্য, খ্রিস্টান জঙ্গি ব্রেনটন টেরেন্ট একটি সেমি অটোমেটিক অস্ত্র দিয়ে নির্বিচারে গুলি চালায়। আর জঙ্গি হামলাকারী যে ধরনের সেমি অটোমেটিক অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়েছিল, দেশটির মন্ত্রিপরিষদ সে ধরনের অস্ত্রের ওপর পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে সম্মত হয়।