আদালতে শুনানি চলাকালে হাসছিলো জঙ্গি ব্রেন্টন

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি মসজিদে হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারেন্টকে পাঁচ এপ্রিল পর্যন্ত রিমান্ড দিয়েছে আদালত। অর্থাৎ ২০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে দেশটির আদালত।

শনিবার (১৬ মার্চ) তাকে হত্যার অভিযোগে ক্রাইস্টচার্চের আদালতে হাজির করা হয়। আগামী ৫ এপ্রিল পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতে রাখার পর আবারও সাউথ আইল্যান্ড সিটির হাইকোর্টে উপস্থিত করা হবে টারান্টকে। আল জাজিরা, বিবিসি, এনডিটিভি

নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড পত্রিকা জানিয়েছে, গণমাধ্যমকর্মীরা শুনানি চলাকালে তার ছবি তোলার সময় তিনি হাসছিলেন এবং শে^তাঙ্গ আধিপত্যের চিহ্ন দেখাচ্ছিলেন। পুরো শুনানি চলাকালে ট্যারান্ট চুপ করে পাবলিক গ্যালারিতে অবস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এদিকে, নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন জানান, সন্ত্রসী হামলাকারী ব্রেন্টনের কাছে লাইসেন্সকৃত অত্যাধুনিক পাঁচটি বন্দুক ও একটি আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। আর বর্বরোচিত এ হত্যাকাণ্ডের পর দেশটির অস্ত্র আইনে পরিবর্তন আনার ঘোষণা দেন তিনি।

২৮ বছর বয়সী ব্রেন্টনের বিরুদ্ধে আপাতত হামলাকারীর বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলার অভিযোগ গঠন হলেও পর্যায়ক্রমে আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগ আনা হবে। সন্দেহভাজন আরও দুজনকে হাজতে নেয়া হয়েছে। তবে তাদের বিরুদ্ধে কোনো ফৌজদারি মামলা নেই বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছের একটি মসজিদে হামলা চালায় জঙ্গী ব্রেন্টন । স্থানীয় সংবাদমাধ্যম নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড জানিয়েছে, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীর হামলায় অন্তত ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। এতে অন্তত ৪৮ জন আহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে তিন বাংলাদেশি রয়েছেন। এর মধ্যে ড. আব্দুস সামাদ নামে একজন অধ্যাপকও রয়েছেন। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এদিন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়েরা ওই মাঠে অনুশীলনে করছিলেন। অনুশীলন শেষে তারা মসজিদটিতে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন। তবে তারা মসজিদে প্রবেশের আগেই এই হামলার ঘটনা ঘটায় অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন।