দ্বিতীয় স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে মুখ খুললেন সালমা

বাংলাদেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মৌসুমী আক্তার সালমার প্রথম সংসার ভেঙে যাওয়ার পর গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর ফের বিয়ের পিঁড়িতে বসেন। সে সময় সংবাদ সংম্মেলন করে সালমা জানান, তার বর সানাউল্লাহ নূর সাগর বর্তমানে লন্ডনে ‘বার অ্যাট ল’ করছেন। বাড়ি ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে। বিয়ের তিন মাসের মাথায় সালমার স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে আগেও নাকি বিয়ে করেছেন সাগর। সালমা নাকি তার দ্বিতীয় স্ত্রী।

এদিকে জানা গেছে, গত ২০১৪ সালের ৩ জুন প্রথম বিয়ে করেন সাগর। তার প্রথম স্ত্রী কক্সবাজারের মেয়ে। সালমার সঙ্গে সাগরের বিয়ের খবর প্রকাশের আগেই কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১-এ প্রথম স্ত্রীর মা বাদী হয়ে সাগরের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এদিকে মামলা নম্বর ২৫৪। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ১১ (গ), ১১ (গ)/৩০ ধারায় তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

জানা যায়, লন্ডন যাওয়ার পর থেকেই সাগর বাজে ব্যবহার করতো। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ১৯ নভেম্বর কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ মামলা করা হয়। মামলায় সানাউল্লাহ নূর ও তার বাবা-মাকে আসামি করা হয়েছে।

আসামিদের গ্রেফতারের জন্য ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানায় গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঠিয়েছেন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ এ এইচ এম মাহমুদুর রহমান।

এদিকে মামলার বিবরণীতে আরও জানা যায়, বিয়ের পর থেকে নানাভাবে যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকেন সাগর। শারীরিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। মেয়ের কথা চিন্তা করে সাগরকে তিন কিস্তিতে দশ লাখ দেন। সেই টাকায় সানাউল্লাহ নূরে সাগর যুক্তরাজ্যে ‘বার অ্যাট ল’ পড়তে যান।

এ বিষয়ে এক সাক্ষাৎকারে সালমা বলেন, ‘সাগর সম্পর্কে জেনেশুনেই বিয়ে করেছি। তার আগে কি ছিল, আর না ছিল এটা নিয়ে কোন প্রশ্ন শুনতে চাই না।’

এ সময় সালমা বলেন, ‘আমার স্বামীর আগের স্ত্রী ছিল এটা আমি জানি। কিন্তু সেই স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়েছে, সেটা জানার পরেই আমি বিয়ে করেছি।’

‘আর এটাও জানা দরকার যে আমিও আইনে পড়াশুনা করছি। না জেনে কিছু করিনি। এখন আমি একজন শিল্পী বলে অনেকই ইমেজ নষ্ট করার জন্য ষড়যন্ত্র করে এই কুৎসা রটাচ্ছে।’