ফাঁকা আসনের ওপর ক্ষোভ ঝাড়লো ভারত

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় দেশটির আধাসামরিক বাহিনীর গাড়িবহরে হামলায় অন্তত ৪৪ সেনা নিহত হয়। আর এ আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ। ভারত এ হামলার পেছনে পাকিস্তানের মদদ রয়েছে বলে দাবি করে আসছে দেশটি। তবে পাকিস্তান এ হামলার দায় নিতে নারাজ।

আর এই পাল্টা জবাব দিতে পাকিস্তানের ভেতরে জঙ্গি আস্তানা ধ্বংস করতে ২১ মিনিটের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালায় ভারত। ভারতের এই হামলার জবাবে গত বুধবার পাকিস্তান সীমান্তে ভারতীয় দুই যুদ্ধবিমানকে ভূপাতিত করেন পাকিস্তান সেনারা। আর এর জবাবে ভারত পাকিস্তানের দুটি যুদ্ধবিমানকে ভূপাতিত করে। ঘটনাপ্রবাহে পাকিস্তান বাহিনীর হাতে বন্দি হন দেশটির এক পাইলট। আর পাকিস্তান হারায় একটি যুদ্ধবিমান।

এদিকে, ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) বৈঠকে আমন্ত্রণ পেয়ে অংশগ্রহণ করেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। প্রথমবারের মতো ভারত ওআইসিতে অংশ নেয় দেশটি। তবে ভারত অংশ নেওয়ায় এবারের বৈঠকে অংশগ্রহণ করেনি পাকিস্তান।

শুক্রবার আবুধাবিতে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে অংশ নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ পাকিস্তানের নাম প্রকাশ না করে শুধু পাকিস্তানের জন্য বরাদ্দকৃত ফাঁকা আসনের দিকে তাকিয়ে বলেন, সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলায় আমাদের একসঙ্গে লড়তে হবে।

তিনি বলেন, আমরা যদি মানবতাকে রক্ষা করতে চাই তাহলে যেসব দেশ সন্ত্রাসকে অর্থ ও আশ্রয় দিয়ে সাহায্য করে তাদের এ ধরনের কাজ করা থেকে সরে আসার বার্তা দেয়া উচিত। সন্ত্রাস ও চরমপন্থা এক বিষয় নয়। এদের আলাদা দুটি নাম আছে। কিন্তু এই দুটি বিষয়ের ক্ষেত্রেই ধর্মের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে নানাকাজে সেগুলোকে ব্যবহার করা হয়।

লড়াইটা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে, কোনো নির্দিষ্ট ধর্মের বিরুদ্ধে নয় জানিয়ে সুষমা স্বরাজ বলেন, পাকিস্তানের মাটিতে যে জঙ্গি শিবিরগুলো রয়েছে সেগুলো অবিলম্বে গুঁড়িয়ে দিতে হবে। মুসলিম ভাইবোনদের নিয়েই বৈচিত্র্যপূর্ণ ভারত গড়ে উঠেছে। তারা নিজেদের ধর্মাচরণ করেন এবং অমুসলিম ভাইবোনদের সঙ্গে মিলেমিশে থাকেন। আর এই বৈচিত্র্য এবং সহাবস্থানের জন্যই মৌলবাদ ও চরমপন্থা ভারতীয় মুসলিমদের প্রভাবিত করতে পারেনি।

এর আগে ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে বুধবার ওআইসির বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হলে এতে অংশ নেবে না পাকিস্তান বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ কোরাইশী।