বাংলাদেশের সমস্ত মানুষ জানে ওরা ডাকাত: মান্না

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, বাংলাদেশের সমস্ত মানুষ জানে ওরা ডাকাত। ১৪ সালে তথাকথিত নির্বাচনের পর মানুষ বলেছিল বিএনপির আসে নাই কি করবে। কিন্তু এবার সবাই নির্বাচন আসার পরে রাতের বেলা যে ভোট ডাকাতি হল। সমস্ত রাষ্ট্র মিলে ভোট ডাকাতি করেছে। মানুষ জানে এজন্য তারা এর প্রতিবাদ করছে। মানুষ ভোট দিতে যায় না এতেই এটা বোঝা যায়। মানুষ এই সরকারকে চায় না।

আজ শুক্রবার (২৯ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরাম খাঁ হলে চেতনা বাংলাদেশের উদ্যোগে বাংলাদেশের বর্তমান নির্বাচন শীর্ষক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মান্না বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলে বেড়ান আগুন সন্ত্রাস। আর আগুন সন্ত্রাসকে গ্রেফতার করছেন। আর বলেন আগুন সন্ত্রাসীদের নেত্রীকে গ্রেফতার করেছি। চতুর দিকে তাকালে আগুনের লেলিহানের শিকার মানুষ দেখেছে এই সরকারের আমলে।’

তিনি বলেন, ওই বিল্ডিং এ যারা ছিলেন তারা মৃত্যুকূপে অবস্থান করেছিলেন। এই দেশে মানুষের মৃত্যুর কোন গ্যারান্টি নাই। বাসের কন্টাকটার ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় আর তার ওপর ড্রাইভার চাকা তুলে দেয়।

ডাকসুর সাবেক এই ভিপি বলেন, ঢাকাসহ সারা দেশে যত ড্রাইভার আছে তাদের অর্ধেকের ও লাইসেন্স নাই। বলবেন কাকে লাইসেন্স ছাড়া তো সরকারই ক্ষমতা দখল করে আছে। সরকার দেশ চালানোর জন্য একজন ডাকাতের সন্তানকে সড়কের দায়িত্ব দিয়েছে। এই দেশে নির্বাচন ব্যবস্থা শেষ হয়ে গেছে। বিশেষ করে ২৯ ডিসেম্বরের রাতে। সেদিন কি হয়েছে এটা সারা দেশের মানুষ জানে। যারা ক্ষমতায় আছেন তারাও জানেন।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমাদের দেশে সম্পদের বৈষম্য এরকম যে একদিকে মানুষ মারা যায়, অন্যদিকে বিলাসের অট্টালিকা গড়ে। ঢাকা শহরের বড় বড় গাড়ি গুলোর দিকে তাকালে চোখ জুড়িয়ে যায়। কিন্তু অপর দিকে মানুষের যে কষ্ট সেগুলো তারা বলে না।