ভারতের অনুরোধ প্রত্যাখান করেছে পাকিস্তান

ভারতীয় বিমান বাহিনীর পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে শুক্রবার অভিনন্দনকে মুক্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পাকিস্তান। পাক প্রধানমন্ত্রী পার্লামেন্টে বলেছেন, শুক্রবার অভিনন্দনকে মুক্তি দেওয়া হবে।

ইমরান খান বলেন, ‘দুই দেশের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার স্বার্থে তাকে মুক্তি দেওয়া হবে। সব সঙ্কটই আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা উচিত। কারতারপুর করিডর খোলা সত্ত্বেও আমরা ভারতের কোনো সাড়া পাইনি। পুলওয়ামা হামলার ৩০ মিনিটের মধ্যে আমাদের ওপর দায় চাপানো হলো। আমি বলছি না যে, ভারতের কোনো বিষয়ে পাকিস্তানের ভূমিকা আছে, তবে আমি তাদের তথ্য-প্রমাণ শেয়ার করার আহ্বান জানিয়েছিলাম।’

এদিকে, পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে ফেরত দেয়ার বিষয়ে ভারতের অনুরোধ প্রত্যাখান করেছে পাকিস্তান। ইমরান খানের ঘোষণার পর ভারত অনুরোধ জানিয়েছিল আকাশ পথে পাইলটকে ফেরত দিতে। কিন্তু পাকিস্তান সেই অনুরোধ প্রত্যাখান করে বলেছে ওয়াগা-আত্তারি সীমান্ত ক্রসিংয়েই তাকে ফেরত পাঠানো হবে। খবর দিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার ভারতের পক্ষ থেকে ইসলামাবাদকে বলা হয় স্থল বন্দর দিয়ে নয় তারা আকাশ পথে উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে ফেরত আনতে চায়। কিন্তু মাঝরাতে ইসলামাবাদের পক্ষ থেকে নয়া দিল্লিকে জানানো হয়, এই অনুরোধ রাখা সম্ভব নয়। স্থল বন্দর দিয়েই পাইলট অভিনন্দনকে হস্তান্তর করা হবে।

ভারতের জি নিউজ অনলাইন পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, বিকেলে ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে অভিনন্দনকে হস্তান্তর করা হতে পারে। তাকে গ্রহণ করতে ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি উচ্চপদস্থ দল ছাড়াও সীমান্তের ভারতীয় অংশে জড়ো হয়েছেন অনেক ভারতীয় নাগরিক। এদিকে অভিনন্দনের বাবা-মা চেন্নাই থেকে দিল্লিগামী বিমানে চড়েছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে। তারা দিল্লিতে মিলিত হবেন পুত্রের সাথে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় দেশটির আধাসামরিক বাহিনীর গাড়িবহরে হামলায় অন্তত ৪৪ সেনা নিহত হয়। আর এ আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ। ভারত এ হামলার পেছনে পাকিস্তানের মদদ রয়েছে বলে দাবি করে আসছে দেশটি। তবে পাকিস্তান এ হামলার দায় নিতে নারাজ।