মাদক ব্যবসায়ীদের প্রতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কঠোর হুঁশিয়ারি

আজ ২৪ মার্চ রবিবার বিকালে গাইবান্ধার নাপিতেরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে এক সুধী সমাবেশে মাদক ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘আপনারা মাদক ব্যবসা ছেড়ে দেন, আত্মসমর্পণ করেন, নাহলে পুলিশ বাহিনী আপনাকে খুঁজে বের করবে।’

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘মাদক না ছাড়লে পরিণতি যে কি ভয়াবহ হবে, তা আল্লাহ মাবুদই জানেন। দেশকে বাঁচানোর জন্য, মেধা ও নতুন প্রজন্মকে বাঁচানোর জন্য এবং মাদক নিয়ন্ত্রণে সরকার জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে। যারা আত্মসমর্পণ করবে, সরকার থেকে তাদের আইনি সহায়তা দেওয়া হবে।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘দ্বিতীয় মহাযুদ্ধের সময় ২৪ ঘণ্টা জেগে থাকার জন্য সৈনিকদের ইয়াবা ট্যাবলেট খাওয়ানো হতো। কিন্তু এখন ইয়াবা নেশা হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। যারা ইয়াবা বিক্রি করে, তারা জানে না যে, এর ভয়াবহতা কত। একটানা তিন বছর ইয়াবা সেবন করলে মেধা আর থাকবে না। তাই মাদক নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। মাদক থেকে যুবশক্তিকে বাঁচাতে না পারলে আমাদের স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে। ইসলামেও মাদকের বিরুদ্ধে কথা বলা আছে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে কারাগারগুলোতে ধারণ ক্ষমতা ৩৫ হাজার। কিন্তু বর্তমানে কারাগারগুলোতে ৯০ হাজারেরও বেশি আসামি রয়েছে। এরমধ্যে অর্ধেকই মাদক মামলার আসামি। আমরা মাদক আইন সংশোধন করেছি, মাদক আইনের সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করেছি। সেগুলো আপনারা দেখেছেন। মাদকের সরবরাহ বন্ধ করতে আমরা বিজিবি ও কোস্ট গার্ডকে শক্তিশালী করেছি। যারা মাদক ব্যবসা করে, তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতও নানা ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

এরপর সমাবেশে ফুলছড়ি উপজেলার ৭৪ জন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারী আত্মসমর্পণ করেন। এর মধ্যে ২৫ জন মাদক ব্যবসায়ী। তারা মাদক ব্যবসা ছেড়ে অন্য ব্যবসা করার ঘোষণা দেন। মাদকসেবীরা আর মাদক গ্রহণ করবে না বলে শপথ নেন। পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাদেরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।