৮০০ বছরের পুরনো মমির মাথা উধাও, রহস্য

কোনও প্রাচীন খাজানা নয়, ৮০০ বছরের পুরনো এক মমির মুন্ডু লোপাট হল আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনের এক চার্চ থেকে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘লাইভ সায়েন্স’-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে যে, ডাবলিনের সেন্ট মিচানস চার্চে রক্ষিত এক মমির মাথা রহস্যজনক ভাবে খোয়া গিয়েছে সম্প্রতি।

অনুমান, কিছু লোক শুধুমাত্র ক্ষতি করার উদ্দেশ্য নিয়েই এই কাজটি করেছে। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি এই ঘটনা চার্চ-কর্মীদের নজরে আসে।

মাটির নীচে ভল্টে এখানে মধ্যযুগের বেশ কিছু মৃতদেহ রাখা রয়েছে। এই মমিটি তাদেরই একটি। মমিটি ‘ক্রুসেডার’ নামে পরিচিত। এর পাশাপাশি ‘দ্য নান’ নামে পরিচিত একটি ৪০০ বছরের পুরনো মমিকেও ক্ষতিগ্রস্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে।

ডাবলিনের আর্চবিশপ মাইকেল জ্যাকসন এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এতে ইতিহাস ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালে একবার এই চার্চের ভল্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। সেবার কিছু অল্পবয়সি ছেলেমেয়ে মমিগুলির মুন্ডু নিয়ে ফুটবল খেলেছিল।

আপাতত জ্যাকসন আবেদন রেখেছেন মমির মাথা যথাস্থানে ফেরত দেওয়ার জন্য।

কিন্তু এত জিনিস থাকতে কেন মমির মাথার দিকেই নজর গেল, তা নিয়ে দানা বাঁধছে রহস্য।