আমাকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করলেও আমি হব না: জাহিদুর

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত বিএনপি নেতা মো. জাহিদুর রহমান দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়েই সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় দিকে জাহিদুর শপথগ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। দুপুর ১২টা সেই আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়। জাতীয় সংসদে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তাকে শপথ পড়ান।

বিষয়টি নিয়ে স্পিকারের কার্যালয়ের একজন কর্মকর্তা তারেক মাহমুদ বলেন, জাহিদুর রহমান স্পিকারের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়েছেন। তার শপথ গ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা চলছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই শপথ নেবেন তিনি।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে জাহিদুর রহমান শপথ নেয়ার বিষয়ে তার আগ্রহের কথা জানিয়ে স্পিকার শিরীর শারমিন চৌধুরীকে চিঠি দিয়েছেন।

৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৮ জনপ্রতিনিধি জয়ী হন। ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে ঐক্যফ্রন্ট এই নির্বাচনে ফল বর্জন করে। সেই সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের কোনো প্রতিনিধি সংসদে শপথ না নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তবে এই সিদ্ধান্ত না মেনে আজ শপথ নিলেন বিএনপির জাহিদ।

এদিকে, শপথ নেয়ার পর জাহিদুর রহমান বলেন, দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে শপথ নিয়েছি। দল আমাকে বহিষ্কার করতে পারে জেনেও শপথ নিয়েছি। তবে দল বহিষ্কার করলেও আমি দলে আছি।

তিনি বলেন, ‘আমি শপথ নেয়ার জন্য দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে দেখা করেছি, কথা বলেছি; কিন্তু সম্মতি পাইনি। তারা কোনোভাবেই সম্মতি দেননি। দলের এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত কেউ শপথ নেবে না। ’

দল থেকে বহিষ্কার করতে পারে- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে জাহিদুর বলেন, সেটি নিতে পারে। বহিষ্কার করতে পারে। সেটি তো জেনেশুনেই শপথ নিয়েছি। দল যদি মনে করে বহিষ্কার করবে, করতে পারে। কিন্তু আমি দলেই আছি। বহিষ্কার করলেও আমি বিএনপিরই একজন নিবেদিত প্রাণ। ছাত্রজীবন থেকে দীর্ঘ ৩৮ বছর ধরে আমি বিএনপির সঙ্গে সম্পৃক্ত। বিএনপি আমাকে বহিষ্কার করলেও আমি তো বিএনপি থেকে বহিষ্কার হব না।

তিনি বলেন, আমার নেত্রী ৭৩ বছর বয়সে গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করে জেল খাটছেন। উনাকে যেন গণতন্ত্রের স্বার্থে মুক্ত করে দেয় সংসদে এ আহ্বানও জানাব। এটিই আমার প্রথম অঙ্গীকার।

সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়া এই সংসদ সদস্য আরও বলেন, ‘আমার নেত্রীর মুক্তির জন্য সংসদে যে ভূমিকা রাখা দরকার, সেটি আমি করব। বিশেষ করে আমার এলাকার হাজার হাজার নিরপরাধ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জন্য সংসদে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আহ্বান জানাব। ’

এদিকে, সংসদ জাহিদের শপথের বিষয়টি নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, ‘জাহিদুর রহমান শপথের বিষয়ে দল কিছু জানে না। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছে না।’

সংবিধানের বিধান অনুযায়ী, সংসদের প্রথম বৈঠক থেকে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচিত সংসদ সদস্যকে শপথ নেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে (পীরগঞ্জ–রানীশংকৈল) তিন সাবেক সাংসদকে হারিয়ে বিএনপির প্রার্থী জাহিদুর রহমান নির্বাচিত হন। রংপুর বিভাগের মধ্যে একমাত্র তিনিই বিএনপির প্রার্থী, যিনি জয়ী হতে পেরেছেন।

১৯৯১ সাল থেকে জাহিদুর রহমান নির্বাচন করছেন। তবে দীর্ঘ ২৭ বছর পর মানুষের সহানুভূতির কারণে তিনি জয়ী হয়েছেন। তিনি (ধানের শীষ) ৮৮ হাজার ৫১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ইমদাদুল হক। তিনি ৮৪ হাজার ৩৮৫ ভোট পান। এ ছাড়া মহাজোটের প্রার্থী মো. ইয়াসিন আলী (নৌকা) ৩৮ হাজার ৬৩ ভোট পেয়ে তৃতীয় হন। জাতীয় পার্টির প্রার্থী হাফিজউদ্দিন আহম্মেদ (লাঙ্গল) ২৭ হাজার ১৮২ ভোট পেয়ে চতুর্থ হন।