আমি জানতাম এমনটা হবে: সাকিব

ক্রিকেটের সবচেয়ে জমজমাট আসর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল)। বর্তমানে ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক খেলা চলছে। আর এবার আসরের অন্যতম দল সাবেক চ্যাম্পিয়ন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ হয়ে খেলছেন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

আইপিএলে সাকিবের অবদান স্মরণীয় হলেও এবারে সেভাবে খেলার সুযোগ পাননি সাকিব। এখন পর্যন্ত দুটি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। যে কারণে টানা আট ম্যাচ বসে থাকতে হয়েছে সাইডবেঞ্চে।

প্রতিবারেরই ফর্মের তুঙ্গে থাকায় হায়দরাবাদের ইনিংস গোড়াপত্তন করতে দেখা গেছে দুই বিদেশি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও জনি বেয়ারস্টোকে। অধিনায়কত্বের কারণে একাদশে নিয়মিত থাকতে হয়েছে কেন উইলিয়ামসনকে। লেগস্পিন জাদুকর রশিদ খানের ওপর বরাবরের মতো এবারো ফ্র্যাঞ্চাইজিটি ভরসা রেখেছেন। তিনি তার বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও দ্যুতি ছড়িয়েছেন। ফলে সাকিবকে একাদশের বাইরে থাকতে হয়েছে। শুধু সাকিব কেন, ডাগআউটে বসে থাকতে হয়েছে মার্টিন গাপটিল, মোহাম্মদ নবী, বিলি স্টেনলেকের মতো তারকারদের।

আর এতো এতো তারকাদের মাঝে একাদশের বাইরে থাকবেন বিষয়টি নাকি আগে থেকেই জানতেন সাকিব। প্রথম ম্যাচেই খেলার সুযোগ পেয়ে তেমন সুবিচার করতে পারেননি তিনি। আর এ কারণেই একাদশ থেকে ছিটকে যান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

আর বিষয়টি নিয়ে চেন্নাইয়ের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন, পেশাগত দিক থেকে আমরা আমাদের দায়িত্ব সম্পর্কে অবগত। যেভাবে আমাদের বিদেশি ক্রিকেটাররা পারফরম করেছে, আমাকে নেয়ার কোনো সুযোগ ছিল না।

তিনি বলেন, আমি জানতাম এমনটা হবে। ওয়ার্নার, বেয়ারস্টো দলের ৬০-৭০ ভাগের মতো রান করে দিচ্ছিল। কেন উইলিয়ামসন অধিনায়ক এবং রশিদ তো রশিদই। তাদের জ্বালাময়ী পারফরম্যান্সের ভিড়ে দলে জায়গা পাওয়া খুবই কঠিন। তবে আমি কঠোর পরিশ্রম করেছি। সুযোগ পেলে দলের জন্য অবদান রাখার জন্য প্রস্তুত হয়েছি।

তবে সর্বশেষ চেন্নাইয়ের বিপক্ষে মাঠে নামেন তিনি। তবে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পাননি তার। কিন্তু বল হাতে কিপটে বোলিং করেছেন তিনি, দিয়েছেন মাত্র ৬.৭৫ ইকোনমিতে ২৭ রান। যদিও কোন উইকেট পাননি সাকিব।