ছিনতাইয়ের অভিযোগে জাবির ৫ ছাত্রলীগ কর্মী বহিষ্কার

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) কর্তৃপক্ষ ছিনতাইয়ের অভিযোগে ৫ জন শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে। গত শনিবার ক্যাম্পাসে একজন গাড়ি চালককে পিটিয়ে ছিনতাই করার ঘটনায় অভিযুক্ত পাঁচ জনই ছাত্রলীগের কর্মী।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর এএসএম ফিরোজ উল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ছিনতাইয়ের ঘটনাটির ব্যাপারে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। আগামী সাত দিনের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।’

এদিকে বহিষ্কৃত পাঁচ শিক্ষার্থী হলেন, নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সঞ্জয় ঘোষ, ভূতত্ত্ব বিভাগের রায়হান পাটোয়ারি, সরকার ও রাজনীতি বিভাগের আল রাজি, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের শাহ মুস্তাক সৈকত ও দর্শন বিভাগের মোকাররম শিবলু।

এদিকে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, শনিবার সকালে তারা মনির হোসেন (৩৫) নামের একজনকে ছিনতাই করে বোটানিক্যাল গার্ডেনের পেছনে নিয়ে গিয়ে লোহার চেইন দিয়ে পেটায়। ছিনতাইয়ের শিকার মনির বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন কর্মকর্তার জামাতা। এখন তিনি এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বহিষ্কৃত পাঁচ জনের মধ্যে সঞ্জয়, রায়হান ও রাজি জাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি জুয়েল রানার অনুসারী হিসেবে পরিচিত। শিবলু ও সৈকত সাধারণ সম্পাদক এসএম আবু সুফিয়ান চঞ্চলের অনুসারী।

এদিকে রায়হানের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগ এবারই প্রথম নয়। গত বছর ক্যাম্পাসে আরেকটি ছিনতাইয়ের ঘটনায় তকে দুই বছরের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল।

এ ব্যাপারে সাধারণ সম্পাদক এসএম আবু সুফিয়ান চঞ্চলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা জাবি শাখা ছাত্রলীগ কোনো প্রকার অপরাধ সহ্য করব না। আমরা ঘটনাটি খতিয়ে দেখছি। তারা জড়িত ছিল প্রমাণিত হলে শিগগিরই কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’