ফাতেমাকেও এখন হিংসুক সরকারের সহ্য হচ্ছে না: রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, শাসকরা বেশি মিথ্যা কথা বললে দেশে দুর্যোগ নেমে আসে। দেশে এখন দুর্যোগ থামছেই না। ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মানুষ পুড়ে যাচ্ছে, দোকানপাট-বাড়িঘর ও বিভিন্ন স্থাপনা আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে, লঞ্চ ও নৌকা ডুবে শত শত মানুষ ডুবে যাচ্ছে, নারী-শিশু নির্যাতনের বিভীষিকায় সারা জাতি স্তম্ভিত, চারদিকে শুধু মড়ক ও বধ্যভূমি।

বুধবার (১০ এপ্রিল) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, গত কয়েক দিন আগে এই আওয়ামী মিডিয়াগুলোতে খালেদা জিয়ার গৃহকর্মী ফাতেমা বেগমকে নাকি বেতন দেয়া হচ্ছে না বলে মিথ্যা রিপোর্ট করেছে।

রিজভী বলেন, ‘আমরা খোঁজখবর নিয়ে জেনেছি, ফাতেমা বেগমের বাবাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে, ভয়ভীতি দেখিয়ে ম্যানেজ করে এই সংবাদ প্রচার করা হয়েছে। ফাতেমার পরিবারকে তার প্রাপ্য ছাড়াও অগ্রিম টাকা দেয়া হয়েছে।’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘ফাতেমা আদালতের নির্দেশনায় খালেদা জিয়ার সঙ্গে আছেন। বেগম জিয়া নিজের হাঁটা-চলাতে অসুবিধা হয়। তার একজন সাহায্যকারী দরকার হয়। সেই বিবেচনায় ফাতেমা তার সঙ্গে আছেন। এটিও এখন হিংসুক সরকারের সহ্য হচ্ছে না।’

তিনি বলেন, আজ সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে, ফাতেমার মা বলেছেন, তিনি মাসে মাসে টাকা পান এবং সেই টাকা তিনি নিজেই নিয়ে আসেন। অথচ ফাতেমাকে নিয়ে সরকার জনগণের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘এ ধরনের অসংখ্য ঘটনা যা লিখতে গেলে দিস্তার পর দিস্তা কাগজ শেষ হয়ে যাবে। আসলে খালেদা জিয়ার গৃহকর্মী ফাতেমাকে নিয়ে আওয়ামী দু-তিনটি দলদাস মিডিয়া যে অপপ্রচার ছড়াচ্ছে, সেটির উদ্দেশ্যই হচ্ছে প্যারোল নিয়ে তাদের মিশন সফল হয়নি। এ জন্যই ওই মিডিয়াগুলো সরকারের নির্দেশে এ ধরনের নোংরা খেলায় মেতেছে।’