বিশ্বকাপে অমুসলিম দলের হয়ে মাঠ মাতাবেন যেসব মুসলিম ক্রিকেটাররা

বিশ্বকাপ কড়া নাড়ছে দরজার কাছে। আগামী ৩০মে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে ক্রিকেট বিশ্বকাপের ১২তম আসর শুরু হবে। এরই মধ্যে অংশগ্রণকারী ১০টি দল চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করেছে। এবারের বিশ্বকাপে সাতটি অমুসলিম দলের পাশাপাশি তিনটি মুসলিম দল অংশ নেবে। মুসলিম তিনটি দেশ হচ্ছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান। মুসলিম তিনটি দেশে মধ্যে শুধু মাত্র বাংলাদেশ দলেই আছে দুইজন অমুসলিম ক্রিকেটার। বাকি তিন দলে ৪৩ জনের সবাই মুসলিম। বাংলাদেশ দলে রয়েছে সৌম্য সরকার ও লিটন দাস।

এদিকে অমুসলিম সাতটি দলের মধ্যে মোট ছয়জন জন ক্রিকেটার। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারতের হয়ে মাঠ মাতাবেন তারা। তারা হলেন, হাশিম আমলা, ইমরান তাহির, মঈন আলী, আদিল রশিদ, উসমান খাজা ও মোহাম্মদ সামি।

হাশিম আমলা ও ইমরান তাহির দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট দলকে সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছেন অনেকদিন ধরে। তারা এবার বিশ্বকাপ দলে রয়েছেন। এর আগে ২০১১ ও ২০১৫ সালের বিশ্বকাপেও খেলেছেন আফ্রিকার এই দুই ক্রিকেটার।

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম কোন মুসলিম খেলোয়াড় বিশ্বকাপে খেলবেন। তিনি উসমান খাজা। জাতীয় দলে খেলার পাশাপাশি এই প্রথম বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পেয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় দলের হয়ে দুর্দান্ত পারফর্ম করেছেন তিনি। বল টেম্পারিং কাণ্ডে নিষিদ্ধ হওয়া ডেভিড ওয়ার্নার দলে ফেরায় উসমান খাজার বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে সংশয় থাকলেও অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচকরা দু’জনের ওপরই আস্থা রেখেছেন।

এবারের বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের দুই মুসলিম তারকা ক্রিকেটার রয়েছেন। তারা হলেন মঈন আলী ও আদিল রশিদ। জাতীয় দলের হয়ে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দুর্দান্ত খেলেছেন তারা। যেকারণে বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পেয়েছেন তারা। সবশেষ ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ দলে ছিলেন মঈন আলী। আর ২০১১ সালের বিশ্বকাপে ছিলেন আদিল রশিদ।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের একমাত্র মুসলিম ক্রিকেটার মোহাম্মদ সামি। তিনি ২০১৩ সাল থেকে দেশে হয়ে খেলছেন। ডানহাতি এই পেসার ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ দলেও ছিলেন তিনি। এখন পর্যন্ত জাতীয় দলের হয়ে ৬৩ ওয়ানডেতে ১১৩ উইকেট শিকার রয়েছে সামির।

আর সব মিলে এবারের বিশ্বকাপে ৪৯জন মুসলিম তারকা ক্রিকেটার মাঠ মাতাবেন। তাই সবার প্রতি সবার দোয়াও ভালোবাসা আছে। বিশ্বকাপে তারা চমক দেখাবেন সেই প্রত্যাশাই করছেন মুসলিম ক্রিকেটপ্রেমী মানুষ।