বেশি খেইলেন না, নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বলবো, এসপি হারুনকে শামীম ওসমানের হুঁশিয়ারি

আজ ৬ এপ্রিল শনিবার বিকেল ৪টায় ফতুল্লা ইসদাইরে অবস্থিত বাংলা ভবন কমিউমিটি সেন্টারে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ব্যানারে আয়োজিত এক জরুরী কর্মীসভায় নারায়ণগঞ্জে সংসদ সদস্য একে এম শামীম ওসমান হুশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘বেশি খেইলেন না, নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বলবো’।

এদিকে আজ শামীম ওসমান যখন এ বক্তব্য দিচ্ছেন তখন তার কর্মীরা নারায়ণগঞ্জের এসপি হারুন অর রশিদের প্রত্যাহার দাবী করে শ্লোগান দিতে থাকে। তাদের শ্লোগনের ভাষা ছিল, ‘ঘুষ খোর এসপির প্রত্যাহার চাই। মুক্তিযোদ্ধাদের নারায়ণগঞ্জ গাজীপুর হতে দিবো না’।

এ সময় শামীম ওসমান বলেন, ‘আমার কোনো নেতাকর্মীদের অযথা হয়রানি করা হয় তাহলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। কোনো টেনশনের দরকার নাই। এরপরও যদি কেউ খেলতে চায় তাহলে খেলা হবে। আগ্নি দেখেছেন অগ্নির স্ফুলিঙ্গ কিন্তু দেখেন নাই। এরপরও যদি খেলা হয় তাহলে ২৪ ঘণ্টা না ৬ ঘণ্টার নোটিশ দেব। তবে, চিন্তা কইরেন না। খেলাখেলির দরকার নাই। খেলার আগেই খেলা শেষ হবে ইনশাল্লাহ।’

শামীম ওসমান আরও বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের পরিস্থিতি নাকি অনেক জটিল। আবার নেতাকর্মীরাও দেখলাম খুব উত্তেজিত। আল্লাহর রহমত, আমি ২০১১ এর শামীম নই, থাকলে আমিও উত্তেজিত হইতাম। হওয়াটাই স্বাভাবিক। বয়সের সাথে সাথে সব কিছুর পরিবর্তন হয়।’

এ সময় নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘আপনার কি ভাবছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারায়ণগঞ্জ সম্পর্কে জানেন না? অবশ্যই জানেন। আগামী ১০-১২ দিনের মধ্যে টের পাবেন। কারো পদত্যাগ করতে হবে না, দরকার হলে আমি একা করবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে আরেকজন আছে মহিলা। যার সাথে জামায়াতের সম্পর্ক জড়িত। সেই কথা প্রকাশ হয়েছে। সেই তিনি হুমকি দেন মামলা করবেন। তয় করেন না ক্যান? ও সাংবাদিক ভাইয়েরা তারে গিয়া বলেন না, মামলা করতে। দেখি না কতটুকু সৎ সাহস থাকে তাহলে যেন মামলা করে।’

এ সময় অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা, সহ সভাপতি চন্দন শীল, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফুল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ রশিদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনুসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।