আর্চার-রুটের বোলিং তাণ্ডবে অল্পতে অলআউট আফগানিস্তান

বিশ্বকাপের আগে আজকে নিজেদের দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামে ইংল্যান্ড। এই ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। ম্যাচটি শুরু হয় বিকাল ৩:৩০ মিনিটে। টস জিতে প্রথমে আফগানিস্তানকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক মরগান। বিশ্বকাপের আগে দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচ দুই। প্রথম ম্যাচে তারা অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরেছিল। আর প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তান হারিয়েছিল পাকিস্তানকে। তাই ফুরফুরে মেজাজে আছে তারা।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা ভালো হয়নি। জোফরা আর্চারে বলে দলীয় ১৭ রানের মাথায় ফিরে যান ওপেনা হযরতউল্লাহ জাজাই। ৬ বলে ২ চারের সাহয্যে ১১ রান করেন তিনি। শুরুর ধাক্কা কেটে ওঠার আগে আবার আর্চারে আঘাত। ১০ বলে ৩ রান করে ফিরে যান রহমত শাহ।

এরপর স্টোকসের আঘাত। ভালো খেলতে থাকা ওপেনার নূর আলী জাদরানকে বোল্ড করে তিনি। ৩৪ বলে ৫ চার হাঁকিয়ে ৩০ রান করেন নূর আলী। নূর আলীর পরে ফিরে যান আসগর আফগান। রুটের বলে ১৪ বলে ১০ রান করে ফিরে যান তিনি। আসগর ফিরে গেলে ইংল্যান্ডের বোলাদের ভালোই সামাল দিচ্ছিলেন ক্রিজে থাকা দুই ব্যাটসম্যান।

কিন্তু দুর্ভাগ্য ভাবে রান আউটের শিকার হন হাশমতাউল্লাহ শহীদী। ৫৩ বলে ১৯ রান করেন তিনি। এরপর মঈন আলীর শিকার হন অধিনায়ক গুল্বাদিন নায়েব। ২৬ বলে ১৪ রান করেন তিনি। মাত্র ১ রান করে রান আউট হয়ে ফিরে যান নাজিবুল্লাহ জাদরান। এরপর ক্রিজে এসে দাঁড়াতেই পারলেন না রশিদ খান। ১ বলে কোন রান না করে রুটের বলে স্টোকসের হাতে ধরা পরে ফিরে যান তিনি।

ক্রিজে এসে কিছুটা দেখে শুনে খেললেও মঈন আলীর ওভারে ঝড় তুলেন মোহাম্মদ নবী। মঈন আলীর এক ওভারে দুইটি ছক্কা হাঁকান ও পরে ওভারে মারেন আরেকটি ছয়। ১২৭ রানে ৯ উইকেট পড়ে গেলেও দৌলত জাদরান নিয়ে শেষ উইকেটে ঝড় তুলে নবী।

শেষ পর্যন্ত সবকটি উইকেট হারিয়ে ৩৮.৪ ওভারে ১৬০ রান করেছে আফগানিস্তান। নবী ৪২ বলে ৪৪ রান আর দৌলত জাদরান ১৭ বলে ২০ রান করে অপরাজিত থাকেন। জিততে হলে ৫০ ওভার ইংল্যান্ডকে করত হবে ১৬১ রান। ইল্যান্ডের আর্চার ৩টি, রুট তিনটি এবং স্টোকস ও মঈন আলী ১টি করে উইকেট পান।