‘কাটা গরুও’ মানে না দুই সিটি মেয়রের নির্দেশ

পবিত্র রমজানের গরুর মাংসের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) গত সোমবার (৬ মে) প্রতিনিধি এবং মাংস ব্যবসায়ীদের সঙ্গে নিয়ে দাম নির্ধারণ করা হয়।

এদিন বৈঠকে নির্ধারিত মূল্যে মাংস বিক্রি করার নির্দেশ দিয়ে মেয়র সাঈদ খোকন বলেছিলেন, যদি কোনো ব্যবসায়ী নির্ধারিত দামে মাংস বিক্রয় না করে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওই সভায় ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, রমজান মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখার লক্ষে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতায় ৪৩টি বাজারে ৮টি টিম অভিযান চালাবে। যারা পণ্যে ভেজাল দেবে বা পণ্যের দাম বেশি নেবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দুই সিটি মেয়রের এমন কঠোর নির্দেশনার পরও বাস্তবে গরু, ছাগল ও মহিষ মেয়রদের কথা শুনছে না। নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের মাংস। তবে কিছুটা মেনে পথ চলছে খাসি।

ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত হয়, রাজধানীতে দেশি গরুর কেজি ৫২৫ টাকা, বিদেশি বা বোল্ডার গরু ৫০০ টাকা, মহিষ ৪৮০ টাকা, খাসি ৭৫০ টাকা এবং ভেড়া ও ছাগীর মাংস প্রতি কেজি ৬৫০ টাকা দাম নির্ধারণ হয়।

তবে মঙ্গলবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে দেখা যায়, প্রায় সব দোকানেই গরুর মাংস ৫৫০ থেকে ৫৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে খাসির দাম নির্ধারিত ৭৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।