প্রথম আইপিএল যেভাবে কাঠাচ্ছেন বাংলাদেশি জাহানারা

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) আদলে প্রথমবারের মতো টুর্নামেন্ট আকারে উইমেন্স টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ তথা নারী আইপিএলের আয়োজন করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। আর যেখানে খেলছেন বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের অন্যতম সেরা তারকা জাহানারা আলম। তিনি ভেলোসিটির হয়ে খেলছেন। ইতোমধ্যে ফাইনালে পৌঁছে গেছে জাহানারার ভেলোসিটি।

শনিবার (১১ মে) রাত ৮টায় সুপারনোভার বিপক্ষে শিরোপার জন্য লড়বেন জাহানারা-মিথালিরা। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে একই দলের বিপক্ষে ১২ রানে হেরেছিল ভেলোসিটি। সে ম্যাচে খেলেছন জাহানারা। তিনি ৪ ওভার বোলিং করে ৩৪ রান খরচ করেছিলেন। আজ ফাইনালে আবারও মুখোমুখি হতে যাচ্ছে সুপারনোভা এবং ভেলোসিটি। এ দিন মাঠ মাতাবেন ভেলোসিটির বাংলাদেশি পেসার জাহানারা আলম ও নিউজিল্যান্ডের লিয়া তাহুহুর।

এদিকে, প্রথমবারের মতো নারী আইপিএলে খেলার অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন জাহানারা। তিনি জানান, ‘আমরা এখন তাদের (সুপারনোভা) শক্তি-দুর্বলতা সম্পর্কে জানি। আসলে আমি এবারই প্রথম তাদের (তাহুহুকে দেখিয়ে) বিপক্ষে খেলছি, আগে কখনো এদের সঙ্গে খেলা হয়নি। তবে এক ম্যাচ খেলায় তাদের শক্তির জায়গাটা আমার জানা হয়েছে।

বিভিন্ন পরামর্শ পাওয়ার বিষয়ে জাহানারা বলেন, পাশিখা পান্ডের (ভারতীয় পেসার) সঙ্গে কথা হয়েছে আমার। সে খুবই ভালো একজন মানুষ, আমাকে বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছে। আমি তার সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলেছি। সে আমাকে বলেছে কীভাবে ভারতের ব্যাটারদের বিপক্ষে বল করা উচিৎ, কারণ সে নিজ দেশের ব্যাটারদের ভালো জানে। এছাড়া বিদেশী ব্যাটসম্যানদের ব্যাপারেও অনেক পরামর্শ দিয়েছে আমাকে।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, এখানে আসার আগে আমি অনেক শুনেছি যে জয়পুর খুব সুন্দর শহর, একে গোলাপি শহর বলা হয়। তবে কখনো সেভাবে ঘুরে দেখার সুযোগ হয়নি। আর টুর্নামেন্টের কথা বলতে গেলে আপাতত এটি প্রদর্শনীমূলক ম্যাচ। তবে আমরা সামনের দিকে চেয়ে আছি কারণ শীঘ্রই এটি ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক আসরে রূপ নেবে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নেয়া দারুণ এক পদক্ষেপ এটি। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই।’