বালুভর্তি কার্গোর সঙ্গে লঞ্চের সংঘর্ষ, অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলো যাত্রীরা

চাঁদপুরের মেঘনা নদীর মোহনপুর এলাকায় বালুভর্তি কার্গো জাহাজের সঙ্গে ধাক্কা লেগে অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন এমভি গ্লোরি অব শ্রীনগর-২ লঞ্চের তিন শতাধিক যাত্রী। সংঘর্ষে লঞ্চের তলা ফেটে যায়। তবে সারেংয়ের বুদ্ধিমত্তায় লঞ্চটি দ্রুত তীরে নিতে সক্ষম হয়। এতে প্রাণে বেঁচে যায় যাত্রীরা।

মঙ্গলবার (২১ মে) রাত পৌনে ১০টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিয়ে চাঁদপুর নৌ-পুলিশের ইনচার্জ মো. নাসির উদ্দিন বলেন, এ ঘটনার পর আমরা যাত্রীদের নিরাপত্তা দিয়েছি। পরে ঢাকা থেকে আরেকটি লঞ্চ আসলে ওই লঞ্চে তাদের নিয়ে গন্তব্যে রওনা দেয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শ্রীনগর লঞ্চের মালিক মো. কামরুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকার সদরঘাট থেকে প্রায় তিনশত যাত্রী নিয়ে ভোলার লালমোহনের উদ্দেশে রওনা হয় যাত্রীবাহী লঞ্চ এমভি গ্লোরি অব শ্রীনগর-২। রাত পৌনে ১০টার দিকে একটি বালুভর্তি বড় কার্গো পাশের দিক থেকে ধাক্কা দেয়।

তিনি জানান, দুর্ঘটনায় লঞ্চের সামনের তলা ফেটে যায়। পরে লঞ্চে পানি প্রবেশ করতে থাকলে ওই সময় পেছনে থাকা ভোলা চরফ্যাশন উপজেলার দুলারহাটগামী শ্রীনগর-৮ লঞ্চটিকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে দ্রুত চলে আসে। এরপর শ্রীনগর-২ লঞ্চের যাত্রীদের উদ্ধার করে লালমোহনের উদ্দেশে রওনা হয়।

মো. কামরুল ইসলাম বলেন, তলা ফেটে গেলে চালক দ্রুত লঞ্চটিকে একটি চরে উঠিয়ে দেন। যার কারণে যাত্রীদের কোনো সমস্যা হয়নি। বর্তমানে শ্রীনগর-২ লঞ্চটি চরে উঠিয়ে রাখা হয়েছে।