লিভারে বিষক্রিয়া জমা হলে বুঝবেন যেভাবে

মানুষের দেহের অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। আর প্রতিদিনই আমাদের শরীরে টক্সিক বা বিষ জমা হচ্ছে বাতাস, খাবার এবং পরিবেশ থেকে। লিভার এসব বিষক্রিয়া বের করে শরীরের কার্যকারিতা ঠিক রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু লিভারই যদি ঠিক মতো কাজ না করে তাহলে কি হয়?

ফলে লিভার অলস হতে শুরু করে যখন ফ্যাটি টিস্যুর কারণে শরীরের ওজন বেড়ে যায়। এতে শরীরে বিষ জমা হয়ে নানা ধরনের অসুখ -বিসুখ বেড়ে যায়।

লিভারে টক্সিক বা বিষ জমা হলে কিছু উপসর্গের মাধ্যমে তা প্রকাশ পায়। আপনি বুঝবেন যেমন-

ত্বকে সমস্যা দেখা দেয়: লিভারে টক্সিক জমা হলে ত্বকে সমস্যা দেখা দেয়। সাধারণত যতক্ষণ না ত্বকে কোনও ধরনের ফুসকুড়ি দেখা দেয় তার আগ পর্যন্ত ত্বকের সমস্যা হলে কেউ লক্ষ্য করেন না। ত্বকের সমস্যা বেড়ে গেলে বুঝতে হবে লিভারে কোনও ধরনের সমস্যা হয়েছে।

দাঁত দিয়ে রক্ত পড়ে: যদি ব্রাশ করার সময় দাঁত দিয়ে রক্ত পড়ে তাহলে বুঝতে হবে লিভারে বিষ জমা হয়েছে।

হরমোনের ভারসাম্যজনিত সমস্যা হয়: যদি পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে নারীদের হরমোনের ভারসাম্যজনিত সমস্যা হয় তাহলে বুঝতে হবে লিভার ভাল ভাবে কাজ করতে পারছে না। হরমোনের সমস্যা হলে সাধারণত ঘন ঘন মুড পরিবর্তন হয়, ওজন ওঠা-নামা করে এবং মানসিক চাপ বেড়ে যায়।

অতিরিক্ত ঘাম হলে: শরীরে অতিরিক্ত ঘাম হলে বুঝতে হবে লিভার ঠিক মতো কাজ করছে না। যেহেতু লিভার শরীরের অন্যতম বড় একটি অঙ্গ এ কারণে অতিরিক্ত গরম হলে লিভার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তখন ঘামের মাধ্যমে শরীর ঠাণ্ডা হয়।

মুখে দুর্গন্ধ হয়: লিভারে টক্সিক জমা হলে মুখে দুর্গন্ধ হয়। আর মুখে দুগন্ধ হলে বুঝতে হবে লিভারে সমস্যা দেখা দিয়েছে।

অতিরিক্ত ক্লান্ত লাগে: লিভারের কার্যকারিতা ঠিক না থাকলে অতিরিক্ত ক্লান্ত লাগে। তখন মাথা ঘোরোনো, দুর্বল লাগা এসব উপসর্গ বেড়ে যায়।