হার্সেল গিবসও সেদিন বাংলাদেশের কিছু করতে পারেনি

সামনে আরেকটি বিশ্বকাপ। আগামী ৩০ মে শুরু হতে যাচ্ছে ২০১৯ বিশ্বকাপের আসর। এই আসরের আগে বাংলাদেশের বিশ্বকাপে সেরা পারফর্মেন্স নিয়ে আয়োজনের প্রথম ধাপে আজ থাকছে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২০০৭ সালের ম্যাচটি।

সুপার এইটের ম্যাচ ছিল এটি। ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৫১ রান করে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ৮৭ রান করেছিল মোহাম্মদ আশরাফুল। ৮৩ বলে ১২টি চারের সাহায্যে এই রান করেছিলেন আশরাফুল।

ওপেনিংয়ে নামা তামিম ইকবাল ৩৮, জাভেদ ওমর ১৭, আফতাব আহমেদ ৩৫ এবং মাশরাফি করেছিল ২৫ রান।

জবাব দিতে নেমে বাংলাদেশের এক সময়ের মাশরাফির ওপেনিং সঙ্গী সৈয়দ রাসেল প্রথম আঘাত হানেন প্রোটিয়া শিবিরে। ১২ রান করা স্মিথকে বোল্ড করেন তিনি।

দ্বিতীয় আঘাতটিও হানেন এই পেসার। ৩২ রান করা জ্যাক ক্যালিসকে আউট করেন রাসেল। পুরো ম্যাচেও দুর্দান্ত বোলিং করেন এই পেসার। ১০ ওভারে মাত্র ৪১ রান দিয়েছিলেন তিনি।

তবে এই্ ম্যাচে বোলিং তান্ডব কাকে বলে সেটা দেখিয়েছিল মোহাম্মদ রফিক ও আব্দুর রাজ্জাক। রফিক ১০ ওভারে মাত্র ২২ রান দিয়েছিল। তুলে নিয়েছিল একটি উইকেট। আর রাজ্জাক ৯.৪ ওভারে মাত্র ২৫ রান দিয়ে ৩টি উইকেট লাভ করেন।

সে সময় প্রোটিয়াদের দুর্দিনে লড়াই করেছিলেন ভয়ানক হার্শেল গিবস। তবে তিনি ৫৯ বলে ৫৬ রান করে অপরাজিত থাকলেও অন্য প্রান্তে অল আউট হয়ে যায় প্রোটিয়ারা।