অনেক লোককে বুঝিয়ে তিনে ব্যাট করতে হয়েছে: সাকিব

ক্যারিয়ার জুড়ে বেশিরভাগ ম্যাচেই পাঁচ-ছয়ে ব্যাট করেছেন জাতীয় দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। কখনোবা চারে। গত কয়েকটি সিরিজ থেকে নিজের ইচ্ছাতেই তিন নম্বরে নামছেন তিনি। ব্যাটিং নিয়ে কোনো অভিযোগ ছিলো না কখনো। আগে ব্যাটিং করতেন পাঁচ নম্বরে কিন্তু তিনি চাইছিলেন তিনে ব্যাটিং করতে। তাতে রাজি ছিলো টিম ম্যানেজমেরেন্ট অনেকেই। যার কারণে সবাইকে বুঝাতে হয়েছে তাকে। তিনে ব্যাটিং করে সেটির প্রমাণও দিয়েছেন এই অলরাউন্ডার। যদিও তার ব্যাটিংয়ের প্রমাণ দিতে হয় না কিন্তু নিজে চেয়ে নেওয়া পজিশনের কারণেই প্রমাণ দিতে হলো তাকে।

গত ২০১ ম্যাচের মধ্যে এখন পর্যন্ত ১৮ ইনিংসে তিনে ব্যাট করেছেন সাকিব। তাতে ৫১. ৯৩ গড়ে ৮৩১ রান তার। অনেকগুলো ফিফটির পর এই পজিশনে প্রথম পেলেন সেঞ্চুরি। তিন নম্বরে নেমেই শনিবার কার্ডিফে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১১৯ বলে ১২১ রানের ইনিংস খেলেছেন সাকিব। বিশ্বকাপে এটি তার প্রথম সেঞ্চুরি। তিনে খেলেই এবারের বিশ্বকাপে আগের দুই ম্যাচে সাকিব করেছেন ৭৫ ও ৬৪। এখনও পর্যন্ত বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী তিনিই।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩৮৭ রানের পাহাড়সম টার্গেট তাড়া করতে নেমে ১০৬ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ। তবে এ দিন রেকর্ড গড়েছেন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান তারকা সাকিব আল হাসান। বিশ্বকাপে তিনে খেলে প্রথম সেঞ্চুরি করার পর সাকিব জানালে এই পজিশনে আসার কথা।

সাকিব বলেন, ‘সবাইকেই বোঝাতে হয়েছে। হ্যাঁ, সবাইকেই। কারণ যদি এক ম্যাচে রান না পাই তাহলে তারা ভাববে, তার তো পাঁচেই ব্যাট করা উচিত। অনেক লোককে বুঝিয়ে আমাকে তিনে ব্যাট করতে হয়েছে। এখন এটা বেশ কাজে দিচ্ছে।’

সাকিব আরো বলেন, ‘এটা একটু আলাদা, ভিন্ন কিছু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়। তবে আমি এই মূহুর্তে উপভোগ করছি। আমার কাছে মনে হয়েছিল, আমার জন্য আরও বেশি অবদান রাখার সুযোগ এটি। ব্যাটে আরও বেশি অবদান রাখার সুযোগ।’

তিনি বলেন, ‘তবে বলতেই হবে, এটা কেবলই শুরু। এই টুর্নামেন্টে এবং এরপরও আরও অনেক ম্যাচ আছে। আরও অবদান রেখে যেতে হবে। ব্যাটে-বলে আমি যতটা সম্ভব, আরও বেশি অবদান রাখতে চাই।’