আদালত খালেদা জিয়াকে জামিন দিলে সরকারের হস্তক্ষেপ থাকবে না: কাদের

আদালত বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জামিন দিলে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ থাকবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার (১৭ জুন) বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ‘দলের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের যৌথ সভায় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার আদালতের স্বাধীনতার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আদালত খালেদা জিয়াকে জামিন দিলে সরকারের কোনো আপত্তি নেই।

ওবায়দুল কাদের জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকারকে অবৈধ বলা হাস্যকর। নির্বাচিত সংসদকে যারা অবৈধ বলেন, আদালতের রায়ে তাদের জন্মই অবৈধ।

তিনি বলেন, জোড়াতালি দিয়ে আওয়ামী লীগ করবেন না। ত্যাগী কর্মীদের অবহেলা করবেন না। ত্যাগী কর্মীদের অবহেলা করলে দল টিকবে না। ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। সুবিধাবাদীদের নিয়ে পকেট কমিটি করবেন না। পকেট কমিটি কোনো কাজে আসবে না। আওয়ামী লীগ সুবিধাবাদীদের পার্টি না৷ দুঃসময় সুবিধাবাদী ও বসন্তের কোকিলদের হাজারও বাতি জ্বালিয়ে খুঁজে পাওয়া যাবে না। দলের স্বার্থে কাজ করুন। ত্যাগি, অসুস্থ ও অসচ্ছল কর্মীদের পাশে দাঁড়ান।

সেতুমন্ত্রী বলেন, তরুণ ও নতুনদেরকে নৌকার পক্ষে ধরে রাখতে হবে। এ জন্য নতুন সদস্য সংগ্রহের অভিযানের কোনো বিকল্প নেই। সদস্য সংগ্রহ অভিযান ধারালো হাতিয়ারের মতো কাজ করবে। যারা আওয়ামী লীগের ইশতেহারের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে নৌকায় ভোট দিয়েছিলেন, তাদেরকে ধরে রাখতে হবে। নতুন করে লোক ও কর্মী সৃষ্টি করতে হবে। কর্মীরা হচ্ছে আওয়ামী লীগের প্রাণ।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের আত্মা পড়ে আছে তৃণমূলে। গরিব, দুঃখী ও অসহায় কর্মীর ঘরে রয়েছে আওয়ামী লীগের আত্মা। দলের ঐতিহ্য ধরে রাখতে হবে। গরিব দুঃখী কর্মীদের ভালবাসতে হবে। সহানুভূতি দেখাতে হবে। তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে। প্রত্যেক নেতার মধ্যে মানবিক গুণাবলি থাকতে হবে। শেখ হাসিনা মানবিক গুণ বিশিষ্ট নেত্রী। তিনি অসহায় গরীব কর্মীদের পাশে সবসময় দাঁড়ান তাদের খোঁজ খবর রাখেন। আমাদের প্রত্যেককে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনুসরণ, অনুকরণ করতে হবে।