ঈদের জামাত নিয়ে চিন্তিত ছিলাম: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘ঈদের সময় আমি দেশের বাইরে ছিলাম। চিন্তিত ছিলাম ঈদের জামাত নিয়ে। কোনো সমস্যা যেন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখেছি। আমি দেশের বাইরে থাকলেও সবসময় যোগাযোগ রাখি। যখন যে তথ্য পাই তদন্ত করার নির্দেশ দেই।’

রবিবার (৯ জুন) বিকেলে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘মানুষ খুন করে কেউ কি বেহেশতে যেতে পেরেছে? এখনতো সোস্যাল মিডিয়ায় অনেক তথ্য আসে, কেউ কি বেহেশতে পৌঁছে সোস্যাল মিডিয়ায় মেসেজ দিয়েছে যে সে বেহেশতে বসে আঙুর খাচ্ছে? এখন পর্যন্ত যারা মানুষ খুন করেছে, যারা বেহেশতের আশায় মানুষ খুন করেছে, তারা কি একজনও বেহেশতে পৌঁছাতে পেরেছে? কেউ মেসেজ দিয়ে জানাতে পারেনি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কোরআনে আল্লাহ বলেছেন শেষ বিচার তিনি করবেন। আল্লাহ কাউকে শেষ বিচার করার ক্ষমতা দেননি। আল্লাহ কি কাউকে মানুষ মারার ক্ষমতা দিয়েছেন? দেননি। কে মুসলমান, কে মুসলমান নয়, কে ভালো মুসলমান, কে ভালো মুসলমান নয়, সে বিচার করার দায়িত্ব আল্লাহ কাউকে দেননি। এ দায়িত্ব আল্লাহর। নিরীহ মানুষ মারলে বেহেশত পাওয়া যাবে, সেটা কোথাও লেখা নেই।’

অন্যএক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, ‘ঈদের সময় আমি দেশের বাইরে ছিলাম। চিন্তিত ছিলাম ঈদের জামাত নিয়ে। কোনো সমস্যা যেন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখেছি। আমি দেশের বাইরে থাকলেও সবসময় যোগাযোগ রাখি। যখন যে তথ্য পাই তদন্ত করার নির্দেশ দেই।

তিনি বলেন, ‘আমাদের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোও সুন্দরভাবে কাজ করেছে। আসলে আমাদের জনগণ কিন্তু যথেষ্ট সচেতন। জনগণকে সম্পৃক্ত করেই আমরা এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে চাই। এজন্য আমরা সবার সহযোগিতা চাই।’