একজন অধিনায়ক এতটা বোকা হতে পারে জানা ছিল না : শোয়েব আখতার

গতকাল রবিবার ম্যানচেস্টারে মুখোমুখি হয় চির শত্রু ভারত-পাকিস্তান। এদিন রোহিত শর্মার ধ্রুপদী সেঞ্চুরি ১৪০ রানকে প্লাটফর্ম করে ৫ উইকেটে ৩৩৬ রানের পাহাড় গড়ে ভারত। ৭১ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলে তাতে অবদান রাখেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। আর জবাবে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৮৯ রানে হারে পাকিস্তান। ৪০ ওভারে ৩০২ রানের টার্গেটে ৬ উইকেটে ২১২ রান করতে সক্ষম হয় পাকিস্তান।

এর ম্যাচটির বল মাঠে গড়ানোর আগে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পরামর্শ ছিল, টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং নেয়ার। টস জিতলেও আগে ব্যাটিং নেননি সরফরাজ। শুরুতে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান তিনি।

Advertisement

সাবেক পাকিস্তানের অধিনায়ক ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ না শুনে যে ভুল করেছে হারে হারে তার খেসারত দিল সরফরাজ। আর এমন লজ্জাজনক পরাজয়ে চরম হতাশ দেশটির সাবেক ক্রিকেটার থেকে শুরু করে ভক্ত-সমর্থকেরা। এই বাজে হারের জন্য দলনায়ক সরফরাজকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন তারা।

এদিকে, পাকিস্তানের সাবেক গতিতারকা শোয়েব আখতার মতে, ভারতের বিপক্ষে বোকার মতো অধিনায়কত্ব করেছে সে।

সর্বকালের দ্রুতগতির বোলার বলেন, ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে ভারত যে ভুল করেছিল, ঠিক একই ভুল করলো পাকিস্তান। আমি বুঝতে পারছি না কীভাবে একজন অধিনায়ক এতটা বোকা হতে পারে। সে কি জানে না, আমরা রান তাড়া করতে খুব একটা দক্ষ নই! উইকেটের চারদিক শুষ্ক ছিল, স্যাতসেঁতে নয়। ও কি জানতো না যে, আমাদের শক্তিটা বোলিংয়ে, ব্যাটিং নয়?

শোয়েব আক্তার বলেন, সরফরাজ যখন টস জিতেছিল, তখনই আমরা ম্যাচ অর্ধেক জিতে গিয়েছিলাম। কিন্তু কষ্ট করে সে ম্যাচ হেরেছে। এ মহারণে টস খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। পাকিস্তান প্রথমে ব্যাট করে ২৬০ করলেও প্রতিরোধ গড়ে তোলা যেত। সুতরাং আমি মনে করি, তার নেতৃত্ব ছিল নির্বোধের মতো।

তিনি আরো বলেন, পাকিস্তান দলনেতার কাছ থেকে এমন পারফরম্যান্স খুবই হতাশাজনক। হৃদয়বিদারক। আমি তার মাঝে ইমরান খানের ছায়া দেখতে চেয়েছিলাম। কিন্তু বড্ড বেশি দেরি হয়ে গেছে।