চলতি বিশ্বকাপের সেরা একাদশ ঘোষণা

চলতি ইংল্যান্ড ওয়ানডে বিশ্বকাপের গ্রুপর্ব এখনো শেষ হয়নি। এখনো বেশ কয়েকটি ম্যাচ বাকি আছে। বিশ্বকাপে প্রথমে বৃষ্টির কারণে চারটি ম্যাচের কোনো বলই মাঠে গড়াইনি। ফলে কিছুটা ঝিমিয়ে পড়েছিলো এই আসরটি। তবে এবার জমে উঠেছে বিশ্বকাপ। ইংল্যান্ডকে এতদিন পর্যন্ত বিশ্বকাপ জেতার অন্যতম ফেভারিট বলা হচ্ছিল, তাদের কাছে সেমিফাইনালে খেলাটাই এখন অনেকটা কঠিন।

কারণ তাদের এই পথে বাধা এশিয়ার তিন পরাশক্তি বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। ভারত এতোমধ্যে সেমির দিকে পা দিয়েছে। পয়েন্ট অনুযায়ী আর এক ম্যাচ জিতলেই সেমি নিশ্চিত। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত যতোগুলো ম্যাচ হয়েছে তার উপর ভিত্তি করে সেরা একাদশ তৈরি করেছে একটি ভারতীয় দৈনিক পত্রিকা।

যার মধ্যে জায়গা হয়েছে বাংলাদেশের দুই নির্ভর যোগ্য ব্যাটসম্যানের। একাদশে যায়গা পেয়েছেন সাকিব অল হাসান ও মুশফিকুর রহিম।

এক নজরে দেখে নিন বিশ্বসেরা একাদশ:

ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া) :

স্বপ্নের ফর্মে আছেন অস্ট্রেলিয়ার এই বাঁহাতি ওপেনার। দুটো সেঞ্চুরি, টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ স্কোরার, সর্বাধিক রান সবই তার ঝুলিতে। ওপেনিংয়ে আর অন্য কারও নাম ভাবার অবকাশই দিচ্ছেন না ওয়ার্নার।

অ্যারোন ফিঞ্চ (অস্ট্রেলিয়া) :

অস্ট্রেলীয় ব্যাটিং লাইন আপের অন্যতম শক্তি। সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীদের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ফিঞ্চ। যেকোনও পরিস্থিতিতে ম্যাচ বের করার ক্ষমতা রাখেন তিনি।

সাকিব অল হাসান (বাংলাদেশ) :

তাকে কেন যে বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার বলা হয়, চলতি বিশ্বকাপে তা বারবার প্রমাণ করে চলেছেন সাকিব। ব্যাট-বল দুই ক্ষেত্রেই অনবদ্য এই বাংলাদেশি এই বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচে ম্যাচসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পেয়েছেন।

বিরাট কোহলি (ভারত) :

ভারতের ব্যাটিং শক্তির মূল স্তম্ভ। তার চোখ ধাঁধানো শট আর অনবদ্য টাইমিং দেখতে ভালবাসেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। আগ্রাসী মনোভাব আর রানের ক্ষুধার দৌলতে এই রান মেশিন চলতি বিশ্বকাপে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন।

জো রুট (ইংল্যান্ড) :

ইংল্যান্ডের জন্যে চলতি বিশ্বকাপ ভাল না গেলেও প্রায় সমস্ত ম্যাচেই রান পেয়ে চলেছেন রুট। এছাড়াও বিপক্ষের পার্টনারশিপ ভাঙতে বল হাতেও কার্যকর তিনি।

কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড) :

বিশ্বকাপ যত এগিয়েছে ততই যেন বেশি করে ছন্দে ফিরেছে নিউজিল্যান্ড। কিউইদের ম্যাচ জেতানোর পিছনে কাজ করেছে কেন উইলিয়ামসনের অনবদ্য ইনিংস। যেকোনও পিচেই স্বাচ্ছন্দ্য কেনের ব্যাট থেকে আরও অনেক কিছুর প্রত্যাশায় ক্রিকেটপ্রেমীরা।

মুশফিকুর রহিম (বাংলাদেশ) :

বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের অন্যতম শক্তি। বড় রানের টার্গেট দিতে বা তাড়া করে ম্যাচ জেতাতে টাইগারদের ভরসা মুশফিক। এই দলের উইকেটরক্ষক তিনিই।

বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড) :

চলতি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তার একার অদম্য লড়াই এখনও টাটকা ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে। ওভারে নির্মম ব্যাটিংয়ে বিপক্ষকে দুমড়ে দিতে পারেন আবার বল হাতেও সমান ভয়ঙ্কর স্টোকস।

মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া) :

এই বিশ্বকাপে দুরন্ত ছন্দে রয়েছেন অস্ট্রেলীয় এই ফাস্ট বোলার। বল হাতে তার রানআপ রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয় বিশ্বের বড় বড় ব্যাটসম্যানদের। বিশ্বকাপে এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ উইকেট নেওয়ার তালিকায় এক নম্বরে তিনি।

মোহাম্মদ আমির (পাকিস্তান) :

বিষাক্ত সুইং আর গতির মেলবন্ধনে বিপক্ষের ব্যাটিং লাইনআপকে একাই ধ্বংস করে দিতে পারেন। স্লোয়ার হোক বা বাউন্সার বোলিং বৈচিত্রে চলতি বিশ্বকাপে মারাত্মক দেখাচ্ছে আমিরকে।

ইমরান তাহির (দক্ষিণ আফ্রিকা) :

চলতি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার আশা শেষ। তবে বোলিংয়ে মুগ্ধ করেছেন এই ডান-হাতি লেগ স্পিনার। তার স্পিনের ফাঁদে ধরা পড়েছেন বহু তাবড় ব্যাটসম্যান।