ধাওয়ানকে নিয়ে ভারতের নতুন সিদ্ধান্ত

চলতি দ্বাদশ আইসিসি ওয়ানডে ক্রিকেট বিশ্বকাপে দুরন্ত গতিতে উড়ছে ভারত। কিন্তু এই উড়তি মুহূর্তেই হুট করে খবর এলো ইনজুরিতে দলের ব্যাটিং লাইনআফের অন্যতম নেতা শিখর ধাওয়ান।

সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে রাজকীয় ইনিংস খেলার পথেই প্যাট কামিন্সের লাফিয়ে ওঠা বল কাল হয়ে দেখা দিল ভারতীয় ওপেনারের। বাঁ-হাতের বুড়ো আঙ্গুলে চিড় ধরায় তিন সপ্তাহের জন্য বিশ্বকাপের বাইরে ধাওয়ান।

Advertisement

এদিকে ধাওয়ানের চোটের খবর প্রকাশ্যে আসতেই নেটিজেন থেকে শুরু করে বিশেষজ্ঞ মহল সুর চড়িয়েছে অবিলম্বে পন্তকে যাতে ইংল্যান্ডের বিমানের টিকিটের ব্যবস্থা করানো হয়।

কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে মঙ্গলের সন্ধ্যায় স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হল, ধাওয়ান আপাতত ইংল্যান্ডে দলের সঙ্গেই থাকছেন। বিসিসিআইয়ের মেডিক্যাল টিমের তত্ত্বাবধানেই রয়েছেন তিনি।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে ভারতীয় শিবিরে বয়ে আসে দুঃসংবাদ। চোটের কারণে অন্তত তিন সপ্তাহ মাঠের বাইরে চলে যান শিখর ধাওয়ান।

এদিকে গত রবিবার কেনিংটন ওভালে সেঞ্চুরি করার পথে বাঁ-হাতের বুড়ো আঙুলে চোট পেয়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার বাঁ-হাতি ওপেনার৷ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয় চিকিৎসকরা তাকে অন্তত ২১ দিন বিশ্রাম দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন৷

এক ক্রিকেট অয়েবসাইটের রিপোর্ট অনুযায়ী, রবিবার চোট পাওয়ার পর চোটের গতিপ্রকৃতি বুঝতে সোমবারই ধাওয়ানকে নিয়ে যাওয়া হয় লিডসে। সেখানেই তাঁর আঙুলে স্ক্যান করা হয়। সেই স্ক্যানের রিপোর্টেই বছর তেত্রিশের এই বাঁ-হাতি ওপেনারের আঙুলে হেয়ারলাইন ফ্র্যাকচারের উল্লেখ করা হয়।

আর যাতে বৃহস্পতিবার ট্রেন্ট ব্রিজে নিউজিল্যান্ড ও রবিবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মাঠে নামতে পারছে না ধাওয়ান৷ শুধু তাই নয়, ধাওয়ানের বিশ্বকাপে আর মাঠে নামতে পারবেন কিনা, তা নিয়েও সংশয় দেখা দিয়েছে।

এদিকে গত রবিবার ওভালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচের শুরুতেই প্যাট কামিন্সের বলে বাঁ-হাতের বুড়ো আঙুলে চোট পেয়েছিলেন ধাওয়ান৷ কিন্তু হাতের তীব্র যন্ত্রণা নিয়েও দুরন্ত সেঞ্চুরি করেন তিনি। ১০৯ বলে ১১৭ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেন ধাওয়ান৷

এদিন হাতে যন্ত্রণা নিয়েই ১৬টি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছিলেন তিনি৷ এই হাত নিয়েই ৩৭ ওভার ব্যাটিং করে ভারতীয় ইনিংসকে শিখর তুলে দেন ধাওয়ান৷ শেষ পর্যন্ত মিচেল স্টার্কের বলে ডিপ মিড-উইকেটে ক্যাচ-আউট হয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরেন ধাওয়ান।