ধারাভাষ্যকারদের কড়া সতর্ক করল আইসিসি

চলতি বিশ্বকাপে দেখা গেছে বিতর্কিত আম্পায়ারিং। যা বেশ বড় আকার ধারণ করেছে। গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে দেখা গেছে একের পর এক বাজে আম্পায়ারিং। বিষয়টি নিয়ে এতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উঠেছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। যে কারণে আম্পায়ারদের সমালোচনা করতে কার্পণ্য করেননি সেই ম্যাচে উপস্থিত ধারাভাষ্যকাররাও।

আর ক্যারিবিয়ানরা এই পুরো খেলায় অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বাজে আম্পায়ারিংয়ের শিকার হয়েছে। অনফিল্ড আম্পায়ার ক্রিস গ্যাফানি ও রুচিরা পালিয়াগুর্গে তাদের ব্যাটসম্যানদের একের পর এক ভুল আউট দিয়েছেন।

যে কারণে ওই ম্যাচে মোট পাঁচবার আম্পায়ারদের সিদ্ধান্ত ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমে (ডিআরএস) পরিবর্তন হয়েছে। মিচেল স্টার্কের অনেক বড় ‘নো’ বল এড়িয়ে গেছেন। আর এই ‘নো’ বলটা চোখে পড়লে হয়ত আউট হতে হতো না ক্যারিবিয়ান ওপেনার ক্রিস গেইলকে।

এদিকে, ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ও জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার মাইকেল হোল্ডিং নিজের দলের ওপর এমন অবিচার দেখে আর চুপ করে থাকতে পারেননি। তিনি ধারাভাষ্য রুমে বসে সাথে সাথেই প্রতিবাদ করেন।

হোল্ডিং বলেন, ‘আমি এটা বলার জন্য ক্ষমা চাচ্ছি যে এই ম্যাচে অত্যন্ত বাজে আম্পায়ারিং হয়েছে।’

তবে হোল্ডিংয়ের এই কথার জের ধরে আইসিসি একটি সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে ধারাভাষ্যকারদের। ধারাভাষ্যকারদের নিরপেক্ষ থাকতে ইমেইল দিয়ে তারা বলেছে। ইমেইলে এও বলা হয়েছে আম্পায়ারের ব্যপারে যেন তারা নিরপেক্ষ থাকেন এবং তাদের ভালো কাজের প্রশংসা করেন।

সেই ম্যাচের জন্য আম্পায়ারদের সমালোচনা করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলার কার্লোস ব্রাথওয়েট বলেন, ‘আমি জানি না আমার কথার জন্য আমাকে জরিমানা করা হবে কি-না। কিন্তু আমি বলতে চাই খুবই হতাশাজনক আম্পায়ারিং হয়েছে ম্যাচে। এমনকি আমরা যখন বল করছিলাম তখন অনেকগুলো ঠিক বলকেও ওয়াইড দেয়া হচ্ছিল।’