বিশ্বকাপের টিকিট পেয়ে ধোনিকে যা বললেন পাকিস্তানি সমর্থক

ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচ টানটান উত্তেজনা। চিরশত্রু এই দুটি দলে খেলায় মধ্যে যেমন উত্তেজনা, সমর্থকদের মাঝেই থাকে উত্তেজনা। রাজনৈতিক সমস্যার কারণে এই দেশের মধ্যে কোন সিরিজ ম্যাচ হয় না। দেখায় হয় শুধু বৈষ্যিক কোন আসরে।

আগামী ১৬ জুন বিশ্বকাপের সবচেয়ে উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ম্যানচেস্টারের ওল্ট ট্যাফোর্ডে। এই ম্যাচ উপলক্ষে ছড়া দামে বিক্রি হচ্ছে টিকেট। ম্যাচটি নিয়ে বৃষ্টির আশঙ্কা থাকা সত্ত্বেও ক্রিকেটপ্রেমিরা ম্যাচ দেখতে মুখিয়ে আছেন।

জানা গেছে, প্রায় ২ মাস আগেই এই ম্যাচ মাঠে বসে উপভোগ করার জন্য ৫ লক্ষেরও অধিক টিকেটের আবেদন আসে। যদিও ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে দর্শক ধারণক্ষমতা মাত্র ২৬ হাজার। আর টিকেট বিক্রির ১ম দিনে কিছুক্ষণের মধ্যেই শেষ হয়ে গিয়েছিল ভারত ও পাকিস্তানের ম্যাচের মধ্যকার টিকেট।

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটির মোট টিকেটের ৩ ভাগের ২ ভাগই কিনেছে ভারতীয়রা এবং একশ শতাংশের মধ্যে মাত্র ১৮ শতাংশ পেয়েছে পাকিস্তানি সমর্থকরা।

এদিকে, এই ম্যাচ দেখার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী এক পাকিস্তানি সমর্থক শিকাগো থেকে উড়ে গিয়েছেন ম্যানচেস্টারে। আর সেই পাকিস্তানি সমর্থককে ম্যাচের টিকিট দিয়েছেন ভারতীয় তারকা মহেন্দ্র সিং ধোনি।

পাকিস্তানের করাচিতে জন্মগ্রহণ করা মোহাম্মদ বশির থাকেন শিকাগোতে। দূরদেশে থাকলেও নিজ জন্মভূমি পাকিস্তানকে সমর্থন দিতে উড়ে আসেন মাঠে। এই পাকিস্তানি সমর্থকের সাথে আবার সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক ধোনির সম্পর্ক বেশ মধুর।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে লড়েছিল ভারত ও পাকিস্তান। সেই ম্যাচটিতে জয় পেয়েছিল স্বাগতিক ভারত। আর সেই ম্যাচ দিনেই ধোনির সাথে সম্পর্ক গড়ে ওঠে বশিরের।

যে কারণে এবারের বিশ্বকাপে পাক-ভারত ম্যাচ দেখার আগে থেকে ম্যাচের টিকিট কেটে রাখেননি তিনি। কারণ তার বিশ্বাস ছিল, ধোনি ঠিকই তার টিকিটের ব্যবস্থা করে দেবে এবং সেটিই হয়েছে। বশিরের ইংল্যান্ডে আসার খবর শুনেই তার জন্য টিকিটের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন ভারতীয় তারকা।

৬৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেট সমর্থক বলেন, ‘এখানে এসে দেখলাম, মানুষ ৮০০-৯০০ পাউন্ড দিয়ে এই ম্যাচের টিকিট কিনছে। যা কিনা এখান থেকে শিকাগোতে ফেরার টিকিটের সমমূল্য। কিন্তু দেখেন, আমি বিনামূল্যেই পেয়ে গেছি। টিকিটের জন্য আমাকে কোনো কষ্টই করতে হয়নি। ধোনিকে ধন্যবাদ।’