বিশ্বকাপে সাকিবের সাফল্যের পেছেন লুকিয়ে আছে যে গল্প

১৯৭৫ সাল থেকে শুরু হওয়া বিশ্বকাপ ইতিহাসে টানা চার ইনিংসে ৫০ রানের বেশি রান করে চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে ইতিহাসের খাতায় নাম লেখালেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন যেন পুরোটাই সাকিব ময়। প্রথম দুই ম্যাচ টানা হাফসেঞ্চুরির পর। পরবর্তী দুই ম্যাচে টানা দুটি সেঞ্চুরি করে রেকর্ড সৃষ্ট করেছেন। এর আগে দুটি টানা সেঞ্চুরি করেন মাহমুদউল্লাহ। গেল বিশ্বকাপে তিনি পরপর দুটি সেঞ্চুরি হাকান।

আর এবার তার রেকর্ডে ভাগ বসালেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সাকিব এই রেকর্ডের পাশাপাশি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পক্ষে সবচেয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরি মালিক। ৮৩ বলে ১৩ চারে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন সাকিব। ৯৯ বলে ১৬ টি চার হাঁকিয়ে ১২৪ রানে অপরাজিত থেকে দল রেকর্ডীয় জয় উপহার দেন। এ বিশ্বকাপেই ইংলিশদের বিপক্ষে ১১৯ বলে ১২টি চার ও এক ছক্কায় ১২১ রান করেন সাকিব।

বিশ্বকাপে নিজের এমন সাফল্যে রহস্য জানালেন সাকিব। সাকিব বলেন, ‘জানি না আসলে কি কারণ, এর আগে যেহেতু অনেক কষ্ট করে এসেছি, সুতরাং যখনই কঠিন পরিস্থিতি আসে তখন সেই কষ্টের কথাগুলো মনে পড়ে এবং সেটা আমাকে আসলে সাহস দেয় কিংবা শক্তি দেয় যে এত যেহেতু কষ্ট করেছি এর থেকে তো আর কষ্ট করা লাগবে না। সেই শক্তিটি মনে মনে সবসময়ই আমি পাচ্ছি। সেটা আসলে ব্যাক অফ দ্যা মাইন্ড বড় একটি সাপোর্ট দিচ্ছে এখন।’

নিজের সেরা অবস্থান নিয়ে তিনি বলেন, ‘জানি না, আমি যেটি বললাম যে সেরা অবস্থানে থাকলেই যে আমি বেশি রান করবো কিংবা উইকেট পাবো এটি আসলে তা নয়। অনেক সময় সেরা অবস্থায় না থেকেও অনেক ভালো কিছু কিংবা বেশি কিছু করা সম্ভব হয়। ঐ সময়টাতেও আমি ভালো অবস্থায় ছিলাম, এখনও আমি ভালো অবস্থায় আছি।’