রাতেই ১৪০ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানবে ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’

আজ ১২ জুন বুধবার রাতে ঘণ্টায় ১৩০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার বেগে সুরাষ্ট্র ও কুচ উপকূলে সাইক্লোনটি আঘাত হানতে পারে বলে জানিয়েছে ভারতের আবহাওয়া বিভাগ। কারণ তীব্র শক্তি নিয়ে ভারতের গুজরাটের দিকে ধেয়ে আসছে সাইক্লোন ‘বায়ু’।

জানা যায়, ঘূর্ণিঝড় বায়ু ১২ ঘণ্টায় তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় আরো শক্তিশালী সাইক্লোনে পরিণত হতে পারে। বায়ুর প্রভাবে প্রবল বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ।

Advertisement

এদিকে দুর্যোগ মোকাবিলায় গুজরাটের বিভিন্ন অঞ্চলে জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ফোর্সের সদস্য মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এছাড়া, সেনা, নৌ ও কোস্টগার্ড সদস্যদের সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে বলেও জানানো হয়।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার দিল্লির আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’ আরও শক্তি সঞ্চয় করবে। ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’র প্রভাব বিবেচনায় নিয়ে গুজরাটের সৌরাষ্ট্র, কচ্ছ, ভেরাবল ও দিউ এলাকার মৎস্যজীবীদের উপকূলে ফিরে আসার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া কাউকে সমুদ্রে যেতে নিষেধও করা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া কার্যালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার বিকেলের পর পূর্ব-মধ্য ভারতের দিকে ধেয়ে আসতে শুরু করেছে ঘূর্ণিঝড়টি। এর প্রভাবে আরব সাগর সংলগ্ন এলাকায় ৯০ থেকে ১০০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া শুরু হয়েছে।

আজ বুধবার ঘূর্ণিঝড়টি আরো শক্তি সঞ্চয় করে গুজরাট উপকূলের দিকে এগিয়ে যাবে। তখন এর গতিবেগ হবে ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। এর সর্বোচ্চ গতিবেগ ১৩৫ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছেন আবহওয়াবিদরা।

এদিকে গুজরাট ছাড়াও বায়ুর প্রভাব পড়বে ভারতের কেরালা, কর্ণাটক ও দক্ষিণ মহারাষ্ট্রে। মহারাষ্ট্র উপকূলে বায়ুর গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ৭০ কিলোমিটার।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় বায়ুর প্রভাব মোকাবেলায় এরই মধ্যে গুজরাট রাজ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে তৎপরতা শুরু হয়েছে। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী ছাড়াও সেনাবাহিনী, নৌসেনা ও উপকূলরক্ষী বাহিনীকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে বিশেষ সতর্কতা জারি করে গুজরাটের উপকূলবর্তী এলাকাগুলির সব স্কুল-কলেজ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দিল্লি থেকেও বিষয়টি বিশেষভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।