সন্তানদের ঘুম পাড়িয়ে বাবা-মায়ের আত্মহত্যা

দুই শিশু সন্তানকে ঘুমন্ত অবস্থায় রেখে একসঙ্গে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন স্বামী-স্ত্রী। সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় দুপুরের পর জামালগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে সুনামগঞ্জ নেয়ার পথে তাদের মৃত্যু হয়। নিহত এ দম্পতির সাত বছর বয়সী এক কন্যা ও চার বছর বয়সী এক পুত্র রয়েছে।

শুক্রবার (২৮ জুন) সকাল সাড়ে ৭টার পর উপজেলার ভাটি দৌলতপুর গ্রামের নিজ বাড়িতেই শিশু সন্তানদের ঘুমন্ত অবস্থায় রেখে এ দম্পতি বিষপান করেন।

Advertisement

নিহত স্বামী-স্ত্রী উপজেলার ফেনারবাক ইউনিয়নের ভাটি দৌলতপুর গ্রামের প্রয়াত দীগেন্দ্র তালুকদারের ছেলে অমৃকা তালুকদার (৫২) ও তার স্ত্রী তৃপ্তি রাণী তালুকদার (৩৮)।

শুক্রবার দিবাগত রাত ২টায় জামালগঞ্জ থানার ওসি মো. সাইফুল ইসলাম নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ওসি মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে নিহতের পরিবারের লোকজন কিছু জানাতে পারেনি। তদন্ত চলছে।তদন্তের পরই প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

তিনি জানান, উপজেলার ভাটি দৌলতপুর গ্রামে শিশু সন্তানদের ঘুমন্ত অবস্থায় রেখে শুক্রবার সকালে রান্না করা পায়েসের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে প্রথমে স্ত্রী তৃপ্তি রাণী তালুকদার ও পরবর্তীতে স্বামী অমৃকা তালুকদার খেয়ে নেন। বিষক্রিয়া শুরু হলে বাবা ও মায়ের চিৎকার শুনে শিশুরা জেগে উঠে কান্নাকাটি করতে থাকে।

তিনি আরো বলেন, পরে আলাদা ঘরে বসবাসরত অমৃকার ভাই, তার পরিবারের লোকজন ও প্রতিবেশীরা এসে দ্রুত তাদেরকে জামালগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর তাদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে নেয়ার পথে প্রথমে অমৃকা তালুকদার ও পরে তৃপ্তি রাণী মারা যান। রাত ৮টার দিকে তাদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

তবে কী কারণে ওই দম্পতি আত্মহত্যা করেছেন তা জানাতে পারেননি ওসি।