মধ্য রাতে হোটেল কর্মীর সঙ্গে আফগান ক্রিকেটাদের মারামারি

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে পাত্তাই পায়নি আফগানিস্তান। টসে জিতে ব্যাট করে ৩৯৭ রানের পাহাড় গড়েন ইংলিশরা। জবাবে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৪৭ রান করতে সক্ষম হন আফগানরা। ফলে ১৫০ রানের বড় জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠেছেন স্বাগতিকরা।

এদিকে, ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ইংল্যান্ড ম্যাচের আগের রাতে সেখানকারই এক রেস্টুরেন্টে খেতে যান তারা। খাওয়া-দাওয়া শেষে ওই রেস্টুরেন্টের কর্মীর সঙ্গে মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির ক্রিকেটাররা। খাওয়া-দাওয়া শেষে আনুমানিক রাত সোয়া ১১টার দিকে রেস্টুরেন্ট থেকে বের হন আফগান ক্রিকেটাররা। এ সময় আকবরস নামের রেস্টুরেন্টটির এক কর্মী তাদের পথরোধ করেন। খবর বিবিসি।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের আগের দিন সোমবার ম্যানচেস্টারের একটি রেস্তোরাঁয় খেতে যান আফগানিস্তান দলের খেলোয়াড়রা। সেখানে রেস্তোরাঁয় খেতে আসা কেউ একজন আফগান ক্রিকেটারদের ছবি তুলতে গেলে খেলোয়াড়রা বাধা দেন। খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথাকাটাকাটি শুরু হয়ে ঝামেলা বাড়তে থাকলে হোটেল কর্তৃপক্ষ পুলিশে খবর দেয়।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, হোটেল কর্মী প্রশ্ন ছুড়ে দেন, আগামীকাল খেলা অথচ এখন এখানে কি করছেন আপনারা? পরক্ষণেই সবার ভিডিও করতে উদ্যত হন তিনি। এতেই ক্ষ্যান্ত হননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় তা পোস্ট করার হুমকিও দেন। এ কথা শোনার পরই উত্তেজিত হয়ে পড়েন আফগান ক্রিকেটাররা। ফলে হাতাহাতির মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়। এক ক্রিকেটার ওই কর্মীর ওপর চড়াও হন এবং মারতে এগিয়ে যান। সতীর্থদের হস্তক্ষেপে শেষ পর্যন্ত তিনি বিরত থাকেন। অবশ্য সেই ক্রিকেটারের নাম প্রকাশ করেনি ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।

বিষয়টি নিয়ে গ্রেটার ম্যানচেস্টার পুলিশ জানায়, স্থানীয় সময় রাত সোয়া ১১টা নাগাদ আকবর রেস্টুরেন্টে ঝামেলার খবর পেয়ে সেখানে যায় পুলিশ। এ ঘটনায় কেউ আহত হয়‌নি এবং কাউকে গ্রেপ্তারও করা হয়নি।

তবে ঘটনার বিষয়ে কিছুই জানেন না দাবি করে সংবাদ সম্মেলনে আফগান অধিনায়ক জানান, সাংবাদিকদের কিছু জানার থাকলে টিম ম্যানেজার ও নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের কাছে জানতে চাইতে পারেন। এ ঘটনা ম্যাচে প্রভাব ফেলেছে কি না, এমন প্রশ্ন করা হলে গুলবাদিন জানান, তাঁর কিংবা দলের কাছে এটি কোনো বড় ইস্যু নয়।