মেসির স্বপ্ন ভঙ্গ করে শিরোপার পথে ব্রাজিল

কোপা আমেরিকার সেমি ফাইনাল। সেখানে মুখোমুখি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দল ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। এই ম্যাচটি ঘিরে তাই উত্তেজনার কোন কমতি ছিল না। সেই উত্তেজনার ম্যাচে মেসির আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে ফাইনালে পৌছে গেল ব্রাজিল। ম্যাচে ২-০ গোলে জিতেছে ব্রাজিল।

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমনাত্মক খেলতে থাকে ব্রাজিল। ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই জেসুসের শট আটকে দেন আরমানি। তবে ১২ মিনিটের মাথায় গোল পেতে পারত আর্জেন্টিনা। লিওনার্দো পারেদেসের ডান পায়ের দুরপাল্লার শট বারপোস্ট ঘেষে বেড়িয়ে গেলে বেঁচে যায় ব্রাজিল।

এমনই আক্রমন আর পাল্টা আক্রমনের ম্যাচে ব্রাজিল ১৯ মিনিটের সময় এগিয়ে যায়। ফিরমিনোর পাস থেকে দারুণ একটি গোল করেন তিনি।

ম্যাচের ৩০ মিনিটে অবিশ্বাস্য এক গোল মিস হয় আর্জেন্টিনার। ফ্রিকিক পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। সেখান থেকে মেসির নেয়া ফ্রিকিকে দুর্দান্ত এক হেড করেন সার্জিও অ্যাগুয়েরু। বল লাফিয়ে উঠেও ধরতে পারেনি অ্যালিসন। কিন্তু বল অ্যালিসনকে পরাস্ত করলেও বারপোস্টে লেগে ফিরে আসে। সেই বল হেড করে ক্লিয়ার করেন থিয়াগো সিলভা।

বিরতির পর ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমনাত্মক খেলতে থাকে আর্জেন্টিনা। ব্রাজিলের উপর আধিপত্য বিস্তার করে খেলতে থাকে তারা। ৫৮ মিনিটের সময় মেসির দুর্দান্ত শট বারপোস্টে লেগে ফিরে আসে। এরপর ফিরে আসা বল হেড করে ক্লিয়ার করার চেষ্টা করেন সিলভা। তবে সেটা গিয়ে পড়ে ফের মেসির কাছেই। তার মাটি কামড়িয়ে বাড়ানো পাস সবাইকে ফাঁকি দিয়ে বারপোস্টের সামনে দিয়ে অপর পাস দিয়ে বেড়িয়ে গেলে গোল পাওয়া হয়নি আর্জেন্টিনার।

আর্জেন্টিনার চেপে বসার সুযোগে কাউন্টার অ্যাটাকের সুযোগ পায় ব্রাজিল। আর সেখান থেকেই ম্যাচের ৭১ মিনিটে দারুণ নৈপুন্য দেখিয়ে নিজেদের অর্ধে পাওয়া বল নিয়ে জেসুস পরাস্ত করেন সামনে থাকা তিন আর্জেন্টিনার তারকাকে। দৌড়ে চলে যান আর্জেন্টিনার ডিবক্সের কাছে। সেখানে গিয়ে ডান প্রান্ত দিয়ে দৌড়ে আসা ফিরমিনোকে বল পাস দেন। আর ফিরমিনো ফাকা পোস্টে বল পাঠাতে কোন ভুল করেন নি। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলে হেরেই বিদায় নিতে হয় আর্জেন্টিনাকে।